ইটালিতে ভূকম্পন ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

EarthQuake Italy

ভূমিকম্পে ক্ষয়ক্ষতির নমুনা

মুক্তকথা: বুধবার, ২৪শে আগষ্ট ২০১৬।। ভয়ঙ্কর ৬ মাত্রার (৬ মেগনিচিউড) এক ভূমিকম্প আঘাত করেছে মধ্য ইটালিতে আজ ভোর ইটালি সময় ৩: ৩৬মিনিটে। ইটালির জরুরী ব্যবস্থাপনা বিভাগের বরাত দিয়ে রয়টারের এই খবরটি সম্প্রচার করেছে আইফোন।
এ পর্যন্ত ৩৭ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে এবং আরো বেড়ে যাবার সম্ভাবনা রয়েছে। কি পরিমাণ মানুষ নিখোঁজ রয়েছে কর্তৃপক্ষ এখনও সে হিসাব-নিকাশ করে যাচ্ছেন। এলাকায় কিছু বিদেশী ভ্রমনকারীও ছিলেন বলে অনুমান করা হচ্ছে।

ভূমিকম্প ইটালি

ভূমিকম্পের আগে শহরের নমুনা।

ভূমিকম্পের কেন্দ্র ছিল মধ্য ইটালির ‘রিয়েতি’ প্রদেশের ‘আমাট্রিস’ এবং ‘আকুমুলি’ নামক দু’টি শহর। ভূমির এই কম্পন আশপাশের ‘মার্সে’ ও ‘উমব্রিয়া’ অঞ্চল নিয়ে বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে অনুভুত হয় এবং ব্যাপক ভাঙ্গচুর ও ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

কম্পন কেন্দ্র থেকে প্রায় শত কিলোমিটার দূরবর্তী রুম নগরীতেও কম্পন অনুভুত হয়।

ইটালির ভূজরিপ প্রশিক্ষন কেন্দ্রের দেয়া তথ্যানুযায়ী ‘এপেনাইন’ রেঞ্চের বিপদজনক কম্পন ঝুঁকি এলাকায় এই ভূকম্পন অনুভুত হয়।
ইটালিয়ান মিডিয়ার সাথে আকুমুলি শহরের মেয়র বলেছেন অর্ধেক শহরই ধ্বংস হয়ে গেছে। সে সময় পর্যন্ত তিনি ক্ষয়ক্ষতির সঠিক হিসাব দেননি। কারণ তখনও সবকিছু হিসাব করা সম্ভব হয়ে উঠেনি।

ভূমিকম্প ইটালি

ভূমিকম্পের পর শহরের নমুনা।

একই অবস্থা হয়েছে ‘আমাট্রিস’ শহরের। তাদের মেয়র ‘শেরজিও পিরজ্জি’ বলেছেন-“ওখানে এখন আর কোন ঘর-বাড়ী নেই আর মানুষ সব ওই ভগ্নস্তুপের নিচে।” অনুমান, অনেক মানুষ ভগ্নস্তুপের নিচে জীবীত আটকা পড়ে আছে।
ইটালির সিভিল নিরাপত্বা এজেন্সি’র প্রধান ‘ফাব্রিজিও কারসিও’ এক সাংবাদিক বৈঠকে বলেছেন ব্যাপক ধ্বংসস্তুপের কারণে সকল এলাকায় এখনও পৌঁছা সম্ভব হয়নি। ফলে অনেককিছুই এইমূহুর্তে জানানো সম্ভব হচ্ছে না।
সামরিক বাহিনীর কিছুকে এলাকায় উদ্ধারকাজের জন্য পাঠানো হয়েছে এবং ঘর-বাড়ী হারানো মানুষজনের জন্য অস্থায়ী তাবু রাখা হয়েছে।
১৭ ও ১৮ শতাব্দীতে উক্ত এলাকা মারাত্মক ৬.৯ মাত্রার ভূমিকম্পে বিধ্বস্ত হয়েছিল।

Posted in News, Science and Technology, World

সরকারী স্কুলের জমি রক্ষার দাবীতে মানব বন্ধন

14068197_10206969428140627_8572144163723762219_nমুক্তকথা: বুধবার, ২৪শে আগষ্ট ২০১৬।। শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতরের নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয় নির্মাণের জন্য মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ২০ শতক ভুমি নিয়ে নেবার পায়তারার প্রতিবাদে আজ বুধবার ২৪ আগষ্ট সকালে মৌলভীবাজার শহরের চৌমুহনা চত্বরে মানববন্ধন করেন বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রগন।

14040156_10206969424300531_843157475448195632_nমানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র মৌলভীবাজার চেম্বার অব কমার্সের সাবেক সভাপতি ডা. এম এ আহাদ, অবসরপ্রাপ্ত বেসিক ব্যাংকের ব্যবস্থাপক সৈয়দ মশাইদ আলী, প্রেসক্লাবের সহ সভাপতি আবদুল হামিদ মাহবুব, জাসদ ( রব ) সাধারণ সম্পাদক আহসান উদ্দিন সুইট, মাহবুব সোবানি, হাসান আহমদ রাজা,শাহদত হোসেন, মৌলভীবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ন সম্পাদক আরিফ নেওয়াজ রফি, দশম শ্রেণীর ছাত্র সৈকত আহমদ, মাহবুব, আরিফ হোসেন প্রমুখ। বক্তরা, অন্য কোথাও নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয় নির্মাণের দাবি জানান।

Posted in Moulvibazar, News

প্রাচীনতম সাপ্তাহিক মুক্তকথার

প্রধান কর্মাধ্যক্ষ এম আর খানের সাথে

মৌলভীবাজার জেলা সাংবাদিক ফোরাম
নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়

আব্দুল ওয়াদুদ: মৌলভীবাজার দফতর থেকে।।
আজ মঙ্গলবার ২৩শে আগষ্ট প্রাচীনতম সাপ্তাহিক মুক্তকথার প্রধান কর্মাদক্ষের সাথে মৌলভীবাজার জেলা সাংবাদিক ফোরামের নেতৃবৃন্দের মতবিনিময় অনুষ্টিত হয়ে গেল। সন্ধ্যায় জেলা সাংবাদিক ফোরামের আয়োজনে চৌমূহনাস্থ ফোরামের কার্যালয়ে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্টিত হয়। ফোরামের সভাপতি বকসি ইকবাল আহমদ-এর সভাপতিত্বে ও আমিনূর রশীদ বাবর এর সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি হিসেবে কথা বলেন সাপ্তাহিক মুক্তকথার প্রধান কর্মাদক্ষ ও ইউরোপীয় বিজনেস ডেভেলাপমেন্ট ম্যানেজার, বি.এ.ই সিস্টেমস, জনাব মাহমুদ রশীদ খান। সভায় সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা সাংবাদিক ফোরামের প্রধান উপদেষ্ঠা মোঃ সরওয়ার আহমদ, ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ও মাছরাঙ্গা টিভির জেলা প্রতিনিধি ফেরদৌস আহমদ দুলাল, মুক্তকথার বার্তা ও ফোরামের দপ্তর সম্পাদক আব্দুল ওয়াদুদ, বিশিষ্ট লেখক ও ব্যাংকার এডভোকেট আবু তাহের, বিশিষ্ট সামাজিক ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হাসান আহমদ রাজা, নাট্যকার আ,স,ম সালেহ সোহেল, সৈয়দ বয়তুল আলী, দুরুদ আহমদ, মশাহিদ আহমদ ও হুমাইয়ুন রশীদ প্রমূখ।

thumbnail_Moulvibazar Journalist Motbinimoy pic 2

জেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে মিশতে পেরে নিজেকে ধন্য উল্লেখ করে প্রধান অতিথি বলেন, জেলা সাংবাদিক ফোরাম আমাকে সম্মানিত করায় আমি আপনাদের কাছে চির ঋণি। যুক্তরাজ্য গিয়ে আমি আপনাদের ভূলবনা। ফোরামের কার্যক্রম দেশ-দেশান্তরে বিস্তৃত হয়ে দেশ ও জাতির কল্যানে অবদান রাখবে এটাই আমার প্রত্যাশা।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক স,ই সরকার জবলু, মামূনুর রশীদ মহসিন, ইকবাল রশীদ চৌধুরী, বহুলুল আহমদ, মাহমুদ এইচ খাঁন, দেলোয়ার হোসেন তরফদার সহ অনেকেই। পরে সভার সমাপ্তি ঘোষনা করেন সভার সভাপতি বকসি ইকবাল আহমদ।

Posted in Culture, Moulvibazar, News

প্রসঙ্গ অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড ‌ও অভিবাসন

Unknown-3মুক্তকথা: মঙ্গলবার, ২৩শে আগষ্ট ২০১৬।। “অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে স্থায়ী হওয়ার নতুন সুযোগ” উল্লেখ করে একটি “বিজনেস গাইড” এর বিজ্ঞপ্তি আমার অতি পরিচিত একজন আমার ফেইচ বুকে পাঠিয়েছেন। গত ৭ই জুন ঢাকার একটি অনলাইন বিষয়টিকে নিয়ে সংবাদ প্রচার করেছে বলে তার পাঠানো “মেসেজ” দেখে বুঝতে পারলাম।
এ ধরনের সংবাদে আমি সাধারণতঃ একটু ভীত হয়ে পড়ি। কারণ অতীতে এ নমুনার সংবাদে Unknown-2উৎসাহিত হয়ে বহু মানুষ বিশেষকরে নিরীহ সাধারণ মানুষ দালালের খপ্পরে পড়ে নিঃস্ব হয়েছে নিজে প্রত্যক্ষ করেছি। অনলাইনে প্রচারিত ওই সংবাদে আবার কয়েকজনের নাম ঠিকানা দেয়া হয়েছে যারা এসব আদম পাঠানো বিষয়ে কাজ করেন বলে। আমার ভয় ওখানেই। অতীতে আমি দেখেছি অনেক ধরনের সনদধারীলোক ওইসব ব্যবসার মধ্যদিয়ে সাধারণ মানুষকে ঠকিয়ে নিজের আখের গোছিয়েছে। বহু মানুষের বাড়ীঘর বিক্রি করিয়ে পথে বসিয়েছে। ওখানেই আমার ভয়ের কারণ।
Sydney-Australiaঅনলাইনে প্রকাশিত ওই সংবাদে অস্ট্রেলিয়া আর নিউজিল্যান্ডকে “অভিবাসন প্রত্যাশীদের স্বর্গ হয়ে উঠেছে” বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে। লিখেছেন দুনিয়ার- “৫০ হাজার বছর ধরে চলে আসা অভিবাসনের ইতিহাস নতুন মোড় নিয়েছে…।” এসব বিষয়ে অভিজ্ঞ কয়েকজন আইনজীবীর নামও দেয়া হয়েছে যোগাযোগের জন্য। নিউজিল্যান্ড আর অস্ট্রেলিয়ায় জীবনমান খুবই ভাল একথা ঠিক কিন্তু সেখানে অভিবাসন যে ওতো সহজ নয় তা মনে হয় বলার অপেক্ষা রাখে না। অন্ততঃ সাধারণ আম মানুষের জন্য। অতীতেও এ ধরনের বিজ্ঞাপন দিয়ে সাধারণ মানুষকে ঠকানো হয়েছে। আমার ভয়ের কারণ ওখানেই।
ধন্যবাদ সেই ভাইকে যে আমার কাছে সংবাদটি পাঠিয়েছে। তিনি হয়তো খুবই সরল মনে মানুষের ভাল চিন্তা করে খবরটি অনলাইন থেকে সংগ্রহ করে পাঠিয়েছেন। তিনি হয়তো আরো বহু বন্ধু-বান্ধবের কাছে পাঠিয়েছেন। যারাই উৎসাহি হয়ে এদিকে যাবেন অবশ্যই খুবই সাবধানি পা রাখবেন।

Posted in Business, News, World

মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের জায়গা দখলের প্রচেষ্টা

Moulvibazar_Govt._High_School_administration_&_main_buildingমুক্তকথা: সোমবার ২২শে আগষ্ট ২০১৬।। প্রাচীনতম বিদ্যাপীঠ মৌলভীবাজার সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ২০শতক জায়গা শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর দখল করতে যাচ্ছে বলে বাজারে রটনা হয়েছে। এহেন সংবাদটি আমার পরিচিত এক ছোট ভাই “ওয়াটস এপ” এর মাধ্যমে আমার কাছে পাঠিয়েছে কোন সংবাদপত্রে ছাপার ব্যবস্থা করার জন্য। কোন সংবাদপত্রে দেই, কেই বা ছাপবে ছোট্ট এ খবরটি। পাকিদের লেলিয়ে দেয়া জঙ্গি-সন্ত্রাসীরা গণতান্ত্রিক কর্মকান্ডের আস্কারা পেয়ে যেভাবে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির লক্ষ্যে পামরি করে যাচ্ছে তার জবাবে সংবাদপত্রসহ সারা দেশ হিমশিম খাচ্ছে। অবশেষে সংবাদটি আমাদের অতিব ক্ষুদ্র এই অনলাইনে দেয়া ছাড়া আর কোন উপায় নেই আমার হাতে। কোন কাজ হবে কি-না তাও জানিনা। তবে হাজার কয়েক মানুষ পড়বে এতটুকু নিশ্চয়তা দিতে পারি।

ওয়াটস এপ-এ পাঠানো সংবাদটি পড়ে বুঝতে পারলাম, সরকারী বিদ্যালয় মাঠের পুরাতন ছাত্রাবাস হতে প্রধান শিক্ষকের বাসভবন পর্যন্ত ২০শতক জায়গা শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর দখল করতে যাচ্ছে। যদিও “শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর” বিদ্যা-শিক্ষা পথেরই একটি দপ্তর, তবুও একটি বিদ্যালয়ের জমি তারা দখল করতে যাবেন কেনো? তাদের যদি জমির প্রয়োজন হয়, সরকার খাস জমি থেকে তাদের দিতে পারেন অথবা হুকুম দখল করে জমি দিতে পারেন। একটি বিদ্যালয়ের জমি যা কি-না বহু দাতাদের দানকৃত ভুমি ছাড়াও কিছু কিছু অর্থ দিয়ে কেনা সেই দানকৃত জমি যিনি দান করেছিলেন তিনি বিদ্যালয়ের জন্য দান করেছিলেন, কোন দপ্তর করার জন্য দান করেননি। আর যা খরিদ করা হয়েছিল তাও হয়েছিল ওই বিদ্যালয় স্থাপনের জন্য। তা’হলে কোন আইন বা যুক্তিবলে একটি সুপ্রতিষ্ঠিত বিদ্যালয়ের জমি একটি দপ্তরকে দিয়ে দেবার নির্দেশ মন্ত্রনালয় দেবে? আমার বিদ্যেয় কুলোয় না।

এমনিতেই মৌলভীবাজার শহরে সরকারী বিদ্যালয়ের এই মাঠ ছাড়া মানুষের চিত্ত বিনোদনের অন্য কোন খোলা যায়গা নেই। নেই কোন মুক্তাঙ্গন। বিগত পৌরসভার আমলে শহরের সুন্দর্য্য, পরিবেশবান্ধব অতি প্রাচীণ বৃক্ষরাজী কর্তন করে বিক্রি করা হয়। ফলে শহর হয়ে উঠেছে ছায়াহীন। এ অবস্থায় মাঠের বৃক্ষময় ওই ২০ শতাংশ ভুমি অন্য দপ্তরকে দেয়া একধরনের হটকারীতা বলে মানুষ মনে করে।

প্রাপ্ত ওই সংবাদে জানা যায়, মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক ও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে কোনো রূপ আলাপ আলোচনা ছাড়াই শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের পরামর্শে গোপনে মন্ত্রণালয় হতে জায়গা দখলের আদেশ নিয়ে আসা হয়েছে। আর গত ১৬ আগষ্ট প্রধান শিক্ষকের নিকট জায়গা দিয়ে দেওয়ার জন্য মন্ত্রণালয় থেকে চিঠি আসে।

এ ঘটনায়, শহরের মানুষ ও দেশে-বিদেশে অবস্থানরত ওই বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রগন তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। ওয়াটস এপ-এ একজনতো বলেছেন- “আমরা বিদ্যালয় সম্পদের একসূতা জায়গা কাউকে দিতে চাই না। আমাদেরকেই আমাদের জায়গা রক্ষা করতে হবে। আমরা সরকারি স্কুলের ছাত্রগণ জীবনের শেষ রক্তবিন্দু পর্যন্ত চেষ্টা করে যাব স্কুলের সম্পদকে বাঁচাতে।” তিনি আরও লিখেছেন- “কিছুদিনের মধ্যে আমরা বিশাল মানববন্ধন আয়োজন করব। যা চৌমুহনা থেকে ডিসি অফিস পর্যন্ত বিশাল হবে।”

বিদ্যালয় বিষয়ে অভিজ্ঞগন বলেন যে ২শিফটের স্কুল, সরকারের নির্দেশেই আবাসন সমস্যা দূর করার জন্য ছাত্রাবাস বা শিক্ষকদের কোয়ার্টার নির্মাণের কথা ছিল অনেক আগেই। আজও তা হয়নি। এখন দীর্ঘদিনের এই প্রয়োজনীয়তাকে উপেক্ষা করে নতুন করে অন্য একটি দপ্তরকে জমি দিয়ে দেবার নির্দেশ জনমনে একটু রহস্যের সৃষ্টি করেছে । স্থানীয় মানুষের প্রশ্ন, কোন হিতে মন্ত্রণালয় এই নির্দেশ দিতে পারে? ঠিকই যদি মন্ত্রণালয় নির্দেশ দিয়ে থাকেন তা’হলে অবিলম্বে এ নির্দেশ ফিরিয়ে নেবার জন্য স্থানীয় মানুষ ও বিদ্যালয়ের প্রবাসী ছাত্রগন দাবী করেছেন।

Posted in London, UK, Moulvibazar, News

একটি চিঠি পাল্টিয়ে দিয়েছিল বৃটিশ-ভারতীয় রেলের নমুনা

হারুনূর রশীদ।। Frontier-Mail২রা জুলাই ১৯০৯ সাল। বৃটিশভারতের রেল বাহনের খাতায় চমকপ্রদ এক ঐতিহাসিক দিন। ১৮৫৩ সালে ভারতে ইংরেজগন রেলবাহনে চলাচলের সূচনা করে। বিশাল ভারতে যোগাযোগের মহতি এ সূচনা গোটা ভারতেরই চেহারা পাল্টে দিতে শুরু করে। ওই সময়ে ভারতের গভর্নর জেনারেল লর্ড হার্ডিঞ্জ রেলবাহন চালনার জন্য ব্যক্তিগত উদ্যোগকে উৎসাহিত করেন ফলে বহু কোম্পানী উদ্যোগী হয়ে এগিয়ে আসেন। রেলবাহনের ব্যবসায় পুঁজি বিনিয়োগ করেন। যোগাযোগের ক্ষেত্রে ভারতে এক বৈপ্লবিক যুগের সূচনা হয়। ১৯০৭ সালের দিকে ভারতের অধিকাংশ ব্যক্তিমালিকানাধীন রেলকোম্পানীর দায়ীত্ব সরকার নিয়ে নেয়।
রেল চলাচল শুরু হবার প্রথম ৫৫ বছর পর্যন্ত সবকিছুই খুব ভাল ছিল কেবল ৩য় শ্রেণীর রেল কামরায়, যা ভারতীয়গন ব্যবহার করতেন, কোন বাজ্যি-প্রস্রাবের ব্যবস্থা ছিল না। অদ্ভুত এক নিয়মের কারণে তখন এই সমস্যা নিয়েই রেল চলাচল করছিল। আর ওই নিয়মটি ছিল, মানুষ ৫০ মাইলের বেশী দূরত্বে ভ্রমণ করে না আর এই দূরত্বের জন্য প্রস্রাব-পায়খানার ব্যবস্থা থাকার প্রয়োজন নেই।
3355925235_97f1084ea1কে করবে এই বিধানের পরিবর্তন? কার সাধ্য আছে বৃটিশ বাবুদের সাথে বিবাদ বাধাবে। এরপরেও একজন দাঁড়িয়েছিলেন। অবশ্য কোন রাজনৈতিক কারণে উদ্ভুদ্ধ হয়ে নয়, সম্পূর্ণ নিজস্ব ব্যক্তিগত কারণে একজন বাঙ্গালী এর বিরুদ্ধে কথা বলেছিলেন লিখিতভাবে। যা টনক নাড়িয়ে দিয়েছিল বৃটিশ রেল কর্তৃপক্ষের। সংযোজিত হয়েছিল ৩য় শ্রেণীর কামরার সাথে শৌচাগার। আর সেই মজার কাহিনীর স্রষ্টা ছিলেন জনৈক অখিল চন্দ্র সেন।
সে ১৯০৯ সালের কথা। জনৈক অখিল চন্দ্র সেন রেলগাড়ীতে যাচ্ছেন। বাড়ী থেকে আসার সময় সুস্বাদু বেশ কয়েকটি কাঠালের কোশ খেয়ে এসেছেন। হঠাৎ চলমান গাড়ীতে তিনি টের পেলেন তার পেটে বেশ বড় আকারের একটি মোচড় দিয়ে গেল। প্রমাদ গুনলেন অখিল সেন। গাড়ীতে কোন শৌচাগার নেই। এখন কি করে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দেবেন! ভীষণ দুশ্চিন্তা আর ভুগান্তিতে পড়লেন তিনি। সময় সহায়, দেখেন রেলগাড়ীটি একটি ষ্টেশনে এসে পৌঁছার নিকটে। দুশ্চিন্তার কিছুটা কমে এলো। সামনেই আহমেদপুর ষ্টেশন।
6260154187_ce33c0c351_oষ্টেশনে ট্রেন পৌঁছার সাথে সাথে অখিল সেন পায়খানার দিকে দৌড়ালেন। সৌচকর্ম শেষে একটু প্রশান্তিতে যখন বেরিয়ে আসবেন ঠিক তখনই ষ্টেশন গার্ড রেলগাড়ী ছেড়ে দেবার বাঁশী বাজিয়ে দিল। রেল ষ্টেশন ছাড়তে শুরু করলো। অখিল সেন দৌড়াতে গিয়ে ষ্টেশনের মেঝেতে পড়ে গেলেন। পড়নের ধুতি খুলে গিয়ে তিনি উলঙ্গপ্রায় হয়ে গেলেন। অন্যান্যরা দেখে হেসে লুটুপুটি খেলো। তিনি মনস্ত করলেন চিঠি লিখবেন। লিখেছিলেনও। এরপর কি হয়েছিল দেখুন তার চিঠিতেই-

অখিল চন্দ্র সেন নিজেকে খুব অপমানিতবোধ করলেন। ওই দিনই ঘরে ফিরে তিনি চিঠি লিখলেন শাহিবগঞ্জ বিভাগীয় রেললাইন অফিসের বিভাগীয় কর্তার বরাবরে। ভুলে-শুদ্ধে মেশানো তার ওই চিঠিই আমুল এক পরিবর্তন এনে দিয়েছিল বৃটিশ-ভারতের রেল চলাচলে। সংযোজিত হয়েছিল শৌচাগার ৩য় শ্রেণীর বগিতে।

Posted in Calcutta, India, Featured, News

আজ ভয়াল ২১শে আগষ্ট

হারুনূর রশীদ।।Unknown-1

আজ পরকল্পিত নরহত্যার একুশে আগষ্ট! ইতর, বদ্জাত, সুযোগসন্ধানী আর দূর্ণীতিবাজ, মৌলবাদী পাকিদালাল ও স্বাধীনতা বিরোধীদের দ্বারা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কলঙ্কময় হত্যার পর বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসের এক গভীর হত্যাচক্রান্তের কালিমায় লেপ্টে থাকা এক ঘোর অমানিশার দিন আজ। হিংস্র দানবীয় সন্ত্রাসী অপশক্তি এদিন আক্রান্ত করেছিল শুধু গণতন্ত্র নয় গোটা মানবতাকে। ১৫ই আগষ্টে জাতির জনক হত্যার শোকাবহ দিনের মত তারই কন্যা হত্যার মধ্যদিয়ে পঁচে যাওয়া দূর্গন্ধময় পাকি রাজনীতির আদলে অবাধ লুন্ঠনের আরেক “ফাকিস্তান” নির্মাণের উদ্দেশ্য নিয়েই পিশাচ হায়েনার দল সেদিন রক্তের বন্যা বইয়ে দিয়েছিল বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে।

দেশব্যাপী সন্ত্রাস ও বোমা হামলার প্রতিবাদে ২০০৪ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আয়োজিত আওয়ামী লীগের একটি সমাবেশ শিকার হয় নারকীয় রক্তাক্ত সন্ত্রাসী হামলার। পৈশাচিক এ হামলায় সেদিন প্রয়াত রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ জিল্লুর রহমানের সহধর্মিণী ও আওয়ামী লীগের তৎকালীন মহিলা বিষয়ক সম্পাদক নারী নেত্রী বেগম আইভী রহমানসহ ২৪ জন নিহত হয়েছিলেন। আহত হয়েছিলেন প্রায় ৪শ’ নেতা-কর্মীসহ সাধারণ মানুষ। এদের অনেকেই এখনো শরীরে হাতবোমার ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র টুকরা নিয়ে দুঃসহ জীবন কাটাচ্ছেন। প্রাণপ্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনাকে বাঁচাতে গিয়ে মানববর্ম তৈরি করে প্রাণ উৎসর্গ করেছিলেন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। প্রাণ হারায় ছুটিতে থাকা শেখ হাসিনার এক ব্যক্তিগত নিরাপত্তা রক্ষী। শেখ হাসিনা প্রাণে রক্ষা পেলেও তার শ্রবণশক্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

Unknown২১শে আগস্টের ওই দিন বিকাল ৪টার দিকে সমাবেশ শুরু হয়। শেখ হাসিনা বিকাল ৫টার দিকে সমাবেশস্থলে পৌঁছান। নিরাপত্তা কর্মী বেষ্টিত অবস্থায় তিনি দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে একটি ট্রাকের ওপর তৈরি অস্থায়ী মঞ্চে উঠে বক্তৃতা শুরু করেন। বক্তৃতা শেষে মঞ্চ ট্রাক থেকে ঠিক নামার সময় মঞ্চকে লক্ষ্য করে একটি গ্রেনেড নিক্ষেপ করা হয়। যতদূর জানা যায় সময় তখন ৫টা ২০ কিংবা ২২ মিনিট। এরপর একে একে আরো ১২টি গ্রেনেডের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। মুহূর্তের মধ্যে পুরো এলাকা মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়। রক্তের নদী বয়ে যায় বিস্তৃত এলাকাজুড়ে। মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। শুরু হয় দিগ্বিদিক ছোটাছুটি। মঞ্চের কাছে রাস্তার ওপরে বসা বেগম আইভী রহমানসহ অসংখ্য মানুষ লুটিয়ে পড়েন গ্রেনেডের আঘাতে। খুবই জানা কথা, ঘাতকদের প্রধান লক্ষ্য ছিল শেখ হাসিনা। দুর্বৃত্ত চক্রান্তকারীরা জানে না যে গণমানুষের নেতাকে ওতো সহজে হত্যা করা যায় না। প্রাণে রক্ষা পান হাসিনা। মানবঢাল তৈরি করে শেখ হাসিনাকে মঞ্চ থেকে নামিয়ে এনে তার গাড়ীতে তোলা হয়। পরক্ষনে শেখ হাসিনাকে বহনকারী এই জিপকে লক্ষ্য করেও গুলিবর্ষণ করা হয়।

অমানবিক বর্বরোচিত এই হামলার পর পুলিশের ভূমিকা সন্দেহজনক লাগে সাধারণ মানুষের কাছে।

পিশাচসূলভ ওই গ্রেনেড হামলায় নিহত হন আইভি রহমান, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত নিরাপত্তা রক্ষী ল্যান্স করপোরাল (অব.) মাহবুবুর রশীদ, আবুল কালাম আজাদসহ ১৯জন। এদের মধ্যে ঘটনাস্থলেই নিহত হন ১৬ জন।

প্রায় দেড় বছর ধরে চিকিৎসার পরেও মারা যান আওয়ামী লীগের জনপ্রিয় নেতা ও ঢাকার প্রথম নির্বাচিত মেয়র মোহাম্মদ হানিফ। আহত হয়েছিলেন শেখ হাসিনা, আমির হোসেন আমু, প্রয়াত আব্দুর রাজ্জাক, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, ওবায়দুল কাদের, সাহারা খাতুনসহ আরও ১৩/১৪জন।

হামলার পর সাজানো হয়েছিল “জজ মিয়া” নাটক। আজ সেই ভয়াল কালো দিন।

Posted in Dhaka, Bangladesh, News, Politics

এদের নাম অনন্তকাল উজ্জ্বল উদ্ভাসিত হয়ে থাকবে

মুক্তকথা: রোববার, ২১শে আগষ্ট ২০১৬।। নিরবে নিভৃতে চলে গেল ১৯শে আগষ্ট। কোন ঘটা নেই, নেই কোন আড়ম্বরের অনুষ্ঠান। ছিল না জন্ম বার্ষিকীর বর্ণালী কোন আয়োজন। জীবন বাজি রেখে এরা আমাদের স্বাধীনতার জন্য আমরণ কাজ করে গেছেন সত্যিকার অর্থেই নিঃস্বার্থভাবে। স্বাধীনতার কারণেই যুদ্ধাপরাধী, নরহত্যাকারী, মৌলবাদী পাকিদালাল কুখ্যাত আল-বদর-রাজাকার ও সুবিধাবাদীদের হাতে অকালে জীবন দিতে হয়েছিল জাতির এই সূর্য্যসন্তানকে। আলবদর-রাজাকারেরা জানেনা এরা জাতির অমর সন্তান। জহির রায়হানদের ভুলে গেলে স্বাধীন জাতির অস্তিত্বকেই ভুলে যাওয়া হবে। এরা তাদের কর্মদিয়ে সকল মানুষের মনে যে স্থান করে নিয়েছে তা অনন্তকাল উজ্জ্বল উদ্ভাসিত হয়ে থাকবে। কোন রূপের তাবিজ-কবজই মানুষের মন থেকে এদের নাম মুছে দিতে পারবেনা।

14053823_10208073841577076_6547644954291653656_o

Posted in Culture, Dhaka, Bangladesh, News, Politics

কক্সবাজারে আলোড়ন!

1471505007এইচএম এরশাদ, কক্সবাজার শনিবার ২০শে আগষ্ট॥

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কক্সবাজার জেলা জামায়াতের এক শীর্ষ নেতাকে টেলিফোনে কথা বলার সুযোগ করে দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। যারা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে জেলা জামায়াতের রোকন মাওলানা জাফর উল্লাহ নূরীকে কথা বলার সুযোগ করে দিয়েছেন, তাদের চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সরকারের উচ্চ মহলের নিকট দাবি জানিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধাসহ স্বাধীনতার পক্ষের লোকজন। তারা বলেন, জেলায় একাধিক নারী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থাকা সত্ত্বেও একজন চিহ্নিত জেলা জামায়াতের রোকনকে কেন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলার সুযোগ দেয়া হয়েছে, তা প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে উঠেছে কক্সবাজারের সচেতন মহলের কাছে। এ নিয়ে এখন নিন্দার ঝড় বয়ে চলছে সর্বত্র। প্রতিবাদ জানিয়েছেন রাজনৈতিক ও বহু সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা জনকণ্ঠকে বলেন, বিষয়টি মেনে নেয়া যায় না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শিক্ষকদের মধ্যে কারা আলাপ করবেন, এ বিষয়বস্তু নিয়ে আগেই আলাপ করলে বর্তমানে যে প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছে, তা মোটেও হতো না। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান বলেন, মাদ্রাসা থেকে এবার আলিম পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত সাদিয়া কথা বলে প্রধানমন্ত্রীকে তার অনুভূতির কথা প্রকাশ করেছে।

ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রীকে অনুভূতি জানিয়ে কক্সবাজার সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ফজলুল করিম চৌধুরী ও সিটি কলেজের অধ্যক্ষ ক্যাথিং অং কথা বলেছেন জানিয়ে তিনি আরও বলেন, মাদ্রাসা শিক্ষকের যদি প্রয়োজন হয় তবে আমাদের সঙ্গে পরামর্শ করলে আমরা মানবতাবিরোধীদের সহযোগী না এনে অবশ্যই স্বাধীনতার পক্ষের আলেমকে উপস্থিত করানোর ব্যবস্থা নিতাম। জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বলেন, এটি অবশ্যই নিন্দনীয়। তিনি বলেন, জামায়াতীরা কৌশলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কথা বলে এটাকে ভবিষ্যতে সাইনবোর্ড হিসেবে ব্যবহার করবে।

২০১৬ সালের এইচএসসি-আলিম সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কক্সবাজার ইসলামিয়া মহিলা কামিল (মাস্টার্স) মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মোঃ জাফর উল্লাহ নূরী কথা বলছেন দেখে সভাস্থলে কানাঘুষা চলে আওয়ামী লীগ ঘরানার লোকজনের মধ্যে। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ফল ঘোষণা উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে জেলা জামায়াতের রোকন ও মাদ্রাসা অধ্যক্ষ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন। এ সময় জেলা পরিষদ প্রশাসক মোস্তাক আহমদ চৌধুরী, সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি, আশেক উল্লাহ রফিক এমপি, খোরশেদ আরা হক এমপি, জেলা প্রশাসক মোঃ আলী হোসেন, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক আবুল ফয়েজ মোঃ আলাউদ্দিন খান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কানিজ ফাতেমা মোস্তাক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সাধারণ) কাজী মোঃ আবদুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

(জনকন্ঠ থেকে)

Posted in Dhaka, Bangladesh, News, Politics

এ কি সত্য ? এতো টাকা তিনি কোথায় পেলেন!

মুক্তকথা: শনিবার, ২০শে আগষ্ট ২০১৬।।

পিনিউজবিডি.কম খুবই চমকপ্রদ একটি খবর দিয়েছে। খবরের মূল ব্যক্তি পটিয়ার(চট্টগ্রাম) জনৈক সাইফুল আলম মাসুদ। শুনতে কিছুটা অবাক লাগলেও পিনিউজ লিখেছে, জনাব মাসুদ তার নিজের খরচে পটিয়ার দুইশজন ধর্মপ্রাণ মুসলমানকে হজ্ব করার সুযোগ দান করে কল্যাণী এক ঐতিহাসিক নজীর সৃষ্টি করেছেন। পিনিউজ অবশ্য লিখেছে “বিনা খরচে” হজ্জ্ব করার ব্যবস্থা করে দিয়েছে। “বিনা খরচ” কথা থেকে আমরা ধরে নিয়েছি উক্ত মাসুদ সাহেব তার নিজের খরচে এ আয়োজন করেছেন।

খবরের বিবরণে জানা যায়, পটিয়ার জনৈক সাইফুল আলম মাসুদ (প্রকাশ এস আলম) একদিন তার এলাকার সবাইকে দাওয়াত দিয়ে তার ঘরে ডাকলেন। হজ্বযাত্রী সবাই উপস্থিত হল। সকলে উপস্থিত হলে তিনি সবার মাঝে এসে দাড়িয়ে বললেন “আসসালামু আলাইকুম, আমি আপনাদের একটা অনুরোধ করব, আপনারা কাউকে খুশি হয়ে এক টাকা দিবেন না! আমি আপনাদের জন্য সব টাকার ব্যবস্থা করে দিয়েছি। পটিয়া থেকে বিমানবন্দর, বিমানের ভাড়া, হোটেল, হোটেলে আসা যাওয়ার গাড়ি ভাড়া, মক্কা-মদিনার হোটেল এবং আসা যাওয়া গাড়ি ভাড়া, চিকিৎসা ও ডাক্তার খরচ, ইহরামের কাপড়, এমনকি কোরবানি করার দুম্বার টাকাও আমি দিয়ে দিয়েছি। সবার শেষে আপনাদেরকে বাড়িতে পৌছে দেওয়ার টাকাও দিয়ে দিয়েছি । আপনাদের হজ্ব করার সব দায়িত্ব শাহ আমানত হজ্ব কাফেলাকে দিয়ে দিয়েছি। আপনারা শুধু আমার জন্য একটু দোয়া করবেন আমিও আপনাদের জন্য দোয়া করব।



একটি মন্তব্য না করে উপায় নেই। উক্ত পিনিউজ.বিডি২৪ সুহৃদয় জনদরদী ওই সাইফুল আলম মাসুদ বিষয়ে কোন কিছুই উল্লেখ করেনি। অথচ তার বিশাল একটি ছবি দিয়ে উপরের কথাগুলো লিখে খবর করেছেন। যেহেতু ২শত লোকের হজ্জ্বের খরচ সে তো যে সে বিষয় নয়। কে এই সাইফুল আলম? কি তার পরিচয়? কোন ব্যবসায়ী কি-না? দেশে থাকেন না-কি বিদেশে থাকেন? এসব বিষয়ে কোন সূত্রই দেয়নি ওই অনলাইনটি। হয়তো হবে সংবাদ প্রকাশের প্রচলিত কোন ধারাই তাদের জানা নেই। খুবই সাদা-মাটাভাবে যা জানেন তাই লিখে দিয়েছেন। প্রশ্ন হচ্ছে এমনতরো একটি খবরের সত্যতা কি দিয়ে যাচাই করা যায়? তা কি ওদের খেয়ালে একবারও আসলো না? এতো টাকা তিনি কোথায় পেলেন এই বিষয়টি কি আমরা জানতে পারি না?

Posted in News

পুরনো সংখ্যা

এইদেশ

বাংলাদেশে জঙ্গি হামলায় নিহত

জাপানি নাগরিকদের স্মরণে

AnsarAhmedUllah
পাঠিয়েছেন-আনসার আহমেদ উল্লাহ:

শুক্রবার ১৫ জুলাই ২০১৬: বাংলাদেশে জঙ্গি ও সন্ত্রাসী হামলায় নিহত জাপানি নাগরিকদের স্মরণে ব্রিটেনের জাপান এমব্যাসিতে আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দর শোকবার্তা প্রদান এবং মতবিনিময় করেন । মতবিনিময়কালে বাংলাদেশে জঙ্গি দমনে বাংলাদেশ সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনার করা হয়। দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে সম্ভাবনাময় রাষ্ট্র বাংলাদেশের বিরুদ্ধে স্বাধীনতা বিরোধীদের ষড়যন্ত্র নিয়ে আলোচনা হয়। জাপান এম্ব্যাসি বাংলাদেশের সাথে তাঁদের ব্যবসায়িক এবং পারস্পরিক সম্পর্ক সুদৃঢ় করার আশ্বাস দেয়। যুক্তরাজ্য আওয়ামী পরিবারের পক্ষ থেকে এ শোক বার্তা প্রদান করেন সুলতান মাহমুদ শরীফ সৈয়দ মোজাম্মেল আলী নইমুদ্দিন রিয়াজ আ স ম মিসবা হাবিবুর রহমান হাবীব রবিন পাল জামাল আহমেদ খান

************************* ঢাকার হলি আর্টিজেন হত্যার নিন্দায় যুক্তরাজ্য নির্মূল কমিটি NirmulCommittee2 মুক্তকথা: রাত ২.২৬: শুক্রবার ৮ই জুলাই ২০১৬:: যুক্তরাজ্য নির্মূল কমিটির সদস্য শুভানুধ্যায়ীগন গত ৪ঠা জুলাই লন্ডনের আলতাব আলী পার্কে সমবেত হন প্রতিবাদের জন্য। জঙ্গি সন্ত্রাসীদের দ্বারা ঢাকা গুলশানের হলি আর্টিজেন বেকারী আক্রমণ ও হত্যাযজ্ঞের তীব্রভাষায় নিন্দা করে তারা বলেন যে নিরীহ নিরস্ত্র মানুষের উপর এ আক্রমণ মানবতার প্রতি হুমকি। সভায় তারা, ইসলামী সন্ত্রাসবাদের বিরোদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান। নির্মূল কমিটির সহসম্পাদক জামাল খান, কোষাধ্যক্ষ শাহ্ এম আর বেলাল, নির্বাহী সদস্য শাহ তোফায়েল, কেন্দ্রীয় সদস্য আনসার আহমদ উল্লাহ, সূচনার আহ্বায়ক ছানুমিয়া ও সদস্য স্বাধীন খসরু এবং একজন লিয়ানা জামান নিহতদের স্বর্গীয় আত্মার সন্মানে শহীদ মিণারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। ওই জঙ্গি আক্রমণে প্রাণ হারান ৯জন ইটালিয়ান, ৭জন জাপানী, একজন আমেরিকান এবং একজন ভারতীয়। *********************** image ******************************

আমরা পিছিয়ে গেলাম

গেল গণভোটের সার্বিক ফলাফল নিয়ে কেমডেনের দুই এমপি’র একজন কেয়ার স্টারমার তার সহকর্মীদের বিরতিহীন কাজের প্রশংসা ও ধন্যবাদ জানাতে গিয়ে গণভোটের ফলাফলের উপর তার মনের কথা খুলে বলেছেন। নিঃসঙ্কোচে কোন ঢাক-ডোল না পিটিয়ে ব্যক্ত কথায়, তিনি যে এই ফলাফলের উপর একেবারেই খুশী নন বরং দেশ আর ইউরোপীয় ইউনিয়নের ভবিষ্যত নিয়ে খুবই আশংকিত তা পরিষ্কারই বুঝা যায়।thumbnail_IMG_6287keirStarmer

স্যার উপাধি পাওয়া, 'প্রসিকিউশন সার্ভিসের প্রাক্ত প্রধান' ও কিউসি এই সাংসদ প্রথমেই যা বলেছেন তার বঙ্গানুবাদ করলে দাঁড়ায় যে তিনি মনে করেন গণভোটের এই ফলাফল শুধু বৃটেনই নয় গোটা ইউরোপীয় ইউনিয়নের ভবিষ্যতকে অনির্দিষ্ট দীর্ঘদিনের এক ফেরে ফেলে দিয়েছে। এই ফলাফলে তিনি মনে করেন, বিশালাকারে পেছনের দিকে ফিরে যাওয়া। তিনি আরও মনে করেন, এই ফলাফল বৃটিশ সমাজের দীর্ঘদিনের ক্ষতকে প্রকাশ করে দিয়েছে যা বহুকাল অবহেলিত ছিল। এই ফলাফলে মানুষের দীর্ঘদিনের স্বপ্নভঙ্গ হয়েছে; বপন করা হলো হিংসা আর বিদ্বেষ। এ অবস্থায় এখন আমাদের কাজ হবে চাকুরীচ্যুতির পরিমাণ কমিয়ে আনার লক্ষ্যে এমন পদক্ষেপ নেয়া যা আমাদের অর্থনীতিকে স্থিতিশীল রাখে, আসন্ন অদেখা সমস্যাগুলোকে আমরা মোকাবেলা করতে পারি এবং নতুনকরে গড়ে তুলতে পারি। এজন্য আমাদের প্রয়োজন ঐক্য আর ধৈর্য্য। এখন আমাদের প্রয়োজন প্রচন্ড ইচ্ছাশক্তি নিয়ে সেসব মানুষের কাছে পৌঁছা যারা এই গণভোটে আমাদের দলের কথাকে বেমালুম কানে তুলেনি।
Keir Starmer Labour Member of Parliament for Holborn and St. Pancras

**************************

বাংলা

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে একজনের মৃত্যু

মুক্তকথা: সকাল ১১.১২ : মঙ্গলবার, ১২ জুলাই ২০১৬::
মৌলভীবাজারের মাতারকাপন এলাকায় ফটক নির্মাণের সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে আনোয়ার মিয়া (২৫) নামে এক রাজমিস্ত্রির মর্মান্তিক মৃত্যুর খবর দিয়েছে উত্তরপূর্ব২৪.কম।

উত্তরপূর্ব লিখেছে, সোমবার (১১ জুলাই) দুপুরের দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। মৃত আনোয়ার মিয়া রাজনগর উপজেলার কদমহাটা এলাকার বাসিন্দা।

উত্তরপূর্ব জেনেছে, দুপুরে গেট নির্মাণের সময় আনোয়ার বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে পড়েন। স্থানীয়রা তাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা পলাশ রায় জানান- কোনো অভিযোগ না-থাকায় মরদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়াই তার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
***************************

thumbnail_Hakaluki

ঈদে পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে প্রস্তুত মৌলভীবাজার

সকল পর্যটন এলাকায় দেশ বিদেশী পর্যটকের জন্য নিরাপত্তা ও সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করা হয়েছে।

আব্দুল ওয়াদুদ, মৌলভীবাজার:
এবারের ঈদে পর্যটকদের মুগ্ধ করতে হাকালুকি হাওর, মাধবকুন্ড জল প্রপাত,লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান, হামহাম জলপ্রপাত ও সবুজে সবুজ চা বাগানসহ প্রস্তুত সবুজ প্রকৃতির ‘মানসকন্যা’ মৌলভীবাজার।

মনকাড়া প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলা ভূমি চা বাগানগুলোর মনোহর দৃশ্য, হাকালুকি হাওরের বিস্তীর্ণ জলরাশি, লাউয়াছড়ার দুর্লভ জীববৈচিত্র্য, দেশের বৃহত্তম জলপ্রপাত মাধবকুণ্ড ও দুর্গম পাহাড়ের জলকন্যা হামহাম আর নয়নাভিরাম শতাধিক চা বাগান, রাবার বাগান, আগর বাগান, মাধবপুর লেকসহ এ জনপদের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা এ সকল সৌন্দর্যের ডালি প্রকৃত প্রকৃতি প্রেমীদের আনন্দভ্রমণের জন্য প্রতিনিয়ত স্বাগত জানায়। প্রতি বছরই ঈদ ও জাতীয় দিবসগুলোতে এ সমস্ত দর্শনীয় স্থান মুগ্ধ করে পর্যটকদের।

Moulvibazar hakaluki haor pic

হাকালুকি হাওর: হাকালুকি হাওরে আছে নানা প্রজাতির দেশীয় মাছ, পাখি, শাপলা-শালুক, ঝিনুক, শত শত প্রজাতির জলজ প্রাণী আর হিজল, কড়চ, বরুন, আড়ং, মূর্তা, কলুমসহ সবুজের ঢেউ জাগানিয়া মনকাড়া পরিবেশ। বর্ষা মৌসুমে থৈ থৈ পানি আর শীত মৌসুমে পাখির খেলা বিমোহিত রূপ মাধুর্যে কাছে টানে প্রকৃতি প্রেমীদের। দেশের বৃহত্তম হাওর হাকালুকির সীমানা মৌলভীবাজার ছাড়িয়ে সিলেটের দুটি জেলা মিলে বিস্তৃত। ২৩৮টি বিল নিয়ে এ হাওরের আয়তন ২০ হাজার ৪ শত হেক্টর।

thumbnail_Madhabkundu

মাধবকুণ্ড জলপ্রপাত: দেশের বৃহত্তম জলপ্রপাত মাধবকুণ্ড। বড়লেখা উপজেলার কাঁঠালতলী বাজার থেকে ৪ কি. মি. পূর্ব দিকে এগোলেই কানে আসবে ক্রমাগত জল গড়ানোর শব্দ। সেই সঙ্গে থাকবে সবুজ চা পাতার তাজা গন্ধ। প্রায় ২শ’ ফুট পাথারিয়া পাহাড়ের ওপর থেকে ছোট-বড় পাথরের বুক চিড়ে আছড়ে পড়া জলরাশির ঝর্ণাধারার দৃশ্যে মন নাচে আনন্দ আবেগে।

thumbnail_LawaChara

জাতীয় উদ্যান লাউয়াছড়া: দেশের ট্রপিক্যাল রেইন ফরেস্ট হিসেবে খ্যাত শ্রীমঙ্গল ও কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান। বিনোদনের অন্যতম এ স্পটটি দেশের বনাঞ্চলের মধ্যে নান্দনিক ও আকর্ষণীয়। শ্রীমঙ্গল শহর থেকে ৮ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত জীববৈচিত্র্যে ভরপুর কমলগঞ্জের লাউয়াছড়ায় দেখা মেলে বিভিন্ন বিরল প্রজাতির প্রাণীর। ৭টি বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য ও ১০টি জাতীয় উদ্যানের একটি লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান বাংলাদেশে অবশিষ্ট চিরহরিৎ বনের একটি হিসেবে টিকে আছে। দেশ বিদেশের পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে বনের ফাঁকে গড়ে উঠেছে পাঁচতারকা মানের হোটেল গ্র্যান্ড সুলতান। বাংলাদেশ সরকার ১৯৯৭ খ্রিস্টাব্দে এই বনকে ‘জাতীয় উদ্যান’ হিসেবে ঘোষণা করে। বিলুপ্ত প্রায় উল্লুকের জন্য এবন বিখ্যাত। উল্লুক ছাড়াও এখানে রয়েছে বিভিন্ন প্রজাতির দুর্লভ জীবজন্তু, কীটপতঙ্গ এবং উদ্ভিদ। নিরক্ষীয় অঞ্চলের চিরহরিৎ বর্ষাবন বা রেইন ফরেস্টের মতো এখানেও প্রচুর বৃষ্টিপাত হয়। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, হলিউডের বিখ্যাত চলচ্চিত্র ‘অ্যারাউন্ড দ্য ওয়ার্ল্ড ইন এইটি ডেজ্থ ছবিটির একটি দৃশ্যের শুটিং হয়েছিল এই বনে।

আগর বাগান: বড়লেখার আজীমগঞ্জ ও সুজানগর
এলাকায় বিশাল বিশাল আগর বাগান আর তা থেকে নানা প্রক্রিয়ায় সুগন্ধি সংগ্রহের দৃশ্য কৌতূহল জাগায়। ওখানকার উৎপাদিত আগর সুগন্ধির চাহিদা মিটাচ্ছে দেশ-বিদেশে।

দুর্গম হামহাম: গহীন অরণ্যের দুর্গম হামহাম জলপ্রপাত। ১৫০ ফুট পাহাড়ের ওপর হতে স্ফটিকের মতো স্বচ্ছ পানি আছড়ে পড়ছে বড় বড় পাথরের গায়ে। হামহাম জলপ্রপাত কমলগঞ্জ উপজেলার রাজকান্দি রিজার্ভ ফরেস্টের কুরমা বনবিটের গহীন অরণ্যে। কমলগঞ্জ উপজেলা সদর থেকে প্রায় ৩০ কি.মি. পূর্ব-দক্ষিণে। আয়তন ৭ হাজার ৯৭০ একর। এলাকার পশ্চিম দিকে চাম্পারায় চা বাগান, পূর্ব-দক্ষিণে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের সীমান্ত। এই বনবিটের প্রায় ৯ কি.মি. অভ্যন্তরে দৃষ্টিনন্দন এই হামহাম জলপ্রপাত। প্রায় ১০ কিলোমিটার পাহাড়ি পথ পায়ে হেঁটে পৌঁছাতে হয় এই ‘ঝর্ণা সুন্দরী’র আঙ্গিনায়। নতুন সন্ধান পাওয়া রোমাঞ্চকর দৃষ্টিনন্দন হামহাম জলপ্রপাত একনজর দেখার জন্য দিনদিন পর্যটকদের আগমনে মুখরিত হয়ে উঠে।

thumbnail_MadhabkunduWatchTower

মাধবপুর লেক: নয়ন জুড়ানো এই লেক জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর চা বাগানের পাদদেশে। উপজেলা সদর থেকে প্রায় ১০ কিলোমিটার পাহাড়ি ও সমতল পথ পেরিয়ে চা বাগানের ভেতরে দেখা মিলে আকর্ষণীয় এই লেকের। ন্যাশনাল টি কোম্পানির মালিকানাধীন চা বাগানের ভেতরে মাধবপুর লেক নিজের রূপ দিয়েই দেশি-বিদেশী পর্যটকদের নয়ন কাড়ে।

অন্যান্য: এছাড়া জেলার ৯২টি মনোমুগ্ধকর চা
বাগানসহ আছে মৌলভীবাজার শহরের পাশে বর্ষিজোড়া ইকো পার্ক, মনু লেইক, কুলাউড়া উপজেলার টাটুরার বান্ধ (বাঁধ) লেক, লালমাটি টিলা, গগন টিলা (ওপেন ওয়াচ টাওয়ার), নবাববাড়ির ইমামবাড়া ও মসজিদ, হুমায়ূন আহমদের স্মৃতি বিজড়িত সিআরপি রেস্ট হাউজ ও জুড়ী উপজেলার কমলা ও আনারসের বাগান। নয়নাভিরাম মাধবপুর লেক, মণিপুরী ললিতকলা একাডেমি, বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমানের স্মৃতিস্তম্ভ, গারোটিলা, খাসিয়া পুঞ্জি আর পুঞ্জিতে খাসিয়াদের চাষকৃত পানের বরজ।

****************************

"কিতা বা আইচোনি"

ষাটোর্ধ বয়স। পেশায় ব্যবসায়ী ও সাংবাদিক। শিল্পপতি না হলেও নিজ এলাকার হাতে গোনা কয়েকজন মাত্র ধনপতিদের একজন। চেহারায় ডাকসাইটে আঁচ, প্রথম দর্শনে হঠাত করেই কেউ বুঝতে পারবে না বাঙ্গালী। কেতাদুরস্ত সাহেবিয়ানা ঢঙয়েই জীবন চলছে। স্বজ্জ্বন বন্ধুবতসল।

এক সময় খুবই দাপট ছিল। এখনও যে নেই তা নয়। তবে সময়! সময়ের কাছে সবকিছুকেই হার মানতেই হয়। তুমি যেই হও, বয়সের একটি গোধূলি লগ্ন আছে। এই লগ্নে কোন কিছুতেই মন বসে না। শুধুই অতীত রোমন্থনে মানুষ ভালবাসে। অবশ্য ব্যতিক্রম থাকতেই পারে।

আমিও সাংবাদিকতায় জড়িত বহু কাল যাবত। সেই সূত্রেই তার সাথে সখ্যতা। এখনও আছে। সে প্রায় চল্লিশ বছর আগের কথা। সাংবাদিকতা নিয়ে তার সাথে খুব প্রতিযোগীতা হতো। সে ছিল এবং এখনও আছে, দৈনিক সংবাদের প্রতিনিধি আর আমি ছিলাম ইত্তেফাকের প্রতিনিধি। প্রতিভোরে উঠে খবর নেয়ার চেষ্টা করতাম, সে খবর সংগ্রহের জন্য কোনদিকে বের হয়েছে। আমাদের ওই প্রতিযোগিতা শুধুই সাংবাদিকতা নিয়ে ছিল। সামাজিকভাবে আমরা খুবই আপনজনের মত ছিলাম। তার পর ছন্দ পতন।

আমাকে দেশ ছাড়তে হল। শুধু দেশ ছাড়াই নয়, এক সময় দেখলাম আমি প্রবাসী হয়ে গেছি। সে থেকেই যোগাযোগে ঘাটতি। দেখা সাক্ষাতের তো সুযোগই রইলনা। ফোনে কথা বলে কত আর চিড়ে ভিজানো যায়।

গত সপ্তাহে টেলিফোনে আলাপ। সে এসেছে লন্ডনে ছেলের কাছে একটু ঘুরবে বলে। ভাইও আছে, নিজের মেয়েও আছে এখানে। টাকা পয়সারও অভাব নেই। অতএব ঘোরাঘুরির সুবর্ণ সুযোগ।

কিন্তু বিধি বাম! দু’দিন যেতে না যেতেই শারিরীক অসুস্থতা দেখা দিল। ঘোরাঘুরি সেভাবে করা যাবে না। একটা রোগ ধরা পড়েছে। চিকিতসা করাতে হবে। ডাক্তারও ধরা হয়েছে। এখন প্রয়োজন কাড়ি কাড়ি টাকা।

thumbnail_image1Salam

লন্ডনের রয়েল ফ্রি হাসপাতালে ডাক্তারের নিরীক্ষাধীন সাংবাদিক আব্দুস সালাম।

এতোক্ষন বলছিলাম মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবের সভাপতি খ্যাতিমান সাংবাদিক আব্দুস সালামের কথা। সালাম এসেছেন লন্ডনে ঘুরতে। রোগ ধরা পড়ায় চিকিতসার জন্য আমার নিকটস্ত হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। আজ সকালেই আব্দুল মান্নানের ফোন পেয়ে তাকে দেখতে গেলাম হাসপাতালে। দেখে মনে হলনা তিনি রোগী। দিব্যি, যৌবনের সেই মুচকি হাসি হেসে বললো-“কিতা বা আইচো নি?”

*****************************
Salmafacebook

কাজী সালমা সুলতানা, উত্তরের এক শিক্ষিত সুশীল প্রগতিশীল পরিবারের মানুষ। রাজনৈতিকভাবে জাসদ ঘরানায় বড় হওয়া। তার ফেইচবুক আছে। ফেইচবুকে প্রায়ই দেখি খুব চমতকার সব লেখালেখি, মন্তব্য। তার লেখা থেকেই তার বেড়ে উঠার পটভূমি স্পষ্ট বুঝা যায়।ফেইচবুকের লেখা আর মন্তব্য থেকে বুঝতে পারি মনের দিক থেকে তিনি খুবই স্বচ্ছ আর সমাজের অগ্রগামী মানুষদের একজন। আজ এই এক্ষুনি, চোখে পড়ল তার একখানা ছবিসহ মন্তব্য।ফেইচবুকে তিনি লিখছেন- “যাচ্ছিলাম মালিবাগ দিয়ে।হঠাৎ চোখ পড়লো ডান পাশে দাঁড়িয়ে থাকা পুলিশের জীপের উপর। এক ঝলকে দেখলাম লেখা আছে ' ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশকে উপহার, সৌজন্যে "ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ" ।

CarOfIslamiBank-to-Police ইসলামী ব্যংক আর জামায়াতে ইসলাম এক সুত্রে বাঁধা। রাগে ক্ষোভে হতাশায় আবারো ভাবলাম দেশটা জামাতীকরন হয়েই গেলো .........ছবি সংগ্রহ...গুগল থেকে”
****************************

নদীতে ডুবে বাংলাদেশী ছাত্রের মৃত্যু

আমেরিকার আটলান্টা শহরে নদীতে ডুবে এক বাংলাদেশী যুবকের মৃত্যুর খবর জানা গেছে। আদিল চৌধুরী (১৮) নামের ওই বাংলাদেশি ভার্জিনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন। আদিল বাবা মায়ের সাথে আটলান্টার সাম্বলি শহরে বসবাস করতেন। আদিলের পৈত্রিক বাড়ি আছে বাংলাদেশের সিলেটে।

1466835744Adil

জানা গেছে আটলান্টার চাতাউচি নদীতে বন্ধুদের সঙ্গে সাঁতার কাটতে গিয়ে নদীতে ডুবে মারা যান আদিল। পরে ফায়ার সার্ভিস এসে তার লাশ উদ্ধার করে।

*******************************

‘জেলা সাংবাদিক ফোরাম’ সাংবাদিকদের কল্যানে কাজ করে যাচ্ছে।

আব্দুল ওয়াদুদ: মৌলভীবাজার ২৫শে জুন ২০১৬:

thumbnail_2.......

সাংবাদিকের হাতে ক্রেস্ট তুলে দিচ্ছেন এমি সায়রা মহসিন

মৌলভীবাজার জেলা সাংবাদিক ফোরামের আয়োজনে সংবর্ধনা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্টিত হয়েছে গত শুক্রবার। সাদিয়া কমিউনিটি সেন্টারে ফোরামের সভাপতি বকসি ইকবাল আহমদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস আহমদ এর সঞ্চালনায় ইফতার পূর্ববর্তী আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা সায়রা মহসীন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল হাসান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ ফারুক আহমদ,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খাইরুল আলম, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজান, মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি আব্দুল হামিদ মাহবুব, সাধারণ সম্পাদক এসএম উমেদ আলী সংগঠনের উপদেষ্টা সাংবাদিক সরওয়ার আহমদ, জাতীয় পার্টির জেলা সভাপতি সৈয়দ শাহাবুদ্দিন, আনহার আহমদ সমশাদ, ইদ্রিস আলী প্রমূখ।

thumbnail_Moulvibazar Jela sabgbadik furam  Ifter pic

বক্তব্য রাখছেন জেলা প্রশাসক সৈয়দ কামরুল ইসলাম

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সংবর্ধিত নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান সাংবাদিক আব্দুল বাছিত বাচ্চু, নকুল চন্দ্র দাশ (পরিচালক, ঈশিতা মিডিয়া), ও ইউপি সদস্য সাংবাদিক আব্দুল হামিদ। আলোচকগন, জেলা সাংবাদিক ফোরামের অনুষ্ঠানকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, জেলা সাংবাদিক ফোরাম জেলার সাংবাদিকদের কল্যানে কাজ করে যাচ্ছে। আগামীতে এই ফোরাম থেকে সৎ ও দক্ষ সাংবাদিক তৈরি হবে এই আশা ব্যক্ত করা হয়। পরে নবনির্বাচিত তিন সাংবাদিকদের হাতে ক্রেষ্ট তুলে দেন অতিথিবৃন্দ।

thumbnail_6......

ফোরামের সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ

********************************

একটি মহাসড়ক বন্ধ থাকবে ১৪দিন

Kushiara Bridge
মুক্তকথা: মৌলভীবাজার: বৃহস্পতিবার: ২৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৩ বাংলা, ৯ই জুন ২০১৬ ইংরাজী::

১৪ দিন যানচলাচল বন্ধ রেখে সংস্কার কাজ করতে হবে, আজ এমনতরো বিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন বাংলাদেশ সড়ক বিভাগ সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী মনিরুল ইসলাম। আজ ৯জুন থেকে ২২শে জুন পর্যন্ত ১৪দিন ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে যান-চলাচল বন্ধ থাকবে। মৌলভীবাজারের শেরপুরে কুশিয়ারা নদীর উপর শেরপুর সেতুর সংস্কার কাজের জন্য এই সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকবে।
যাতায়াতকারী সাধারণ মানুষের ভাগ্য ভাল যে বিকল্প ব্যবহারের অপর একটি সড়ক রয়েছে সে মৌলভীবাজার-রাজনগর-ফেঞ্চুগঞ্জ সড়ক। অবশ্য মনিরুল ইসলাম নিজেও বিকল্প সড়কটি ব্যবহার করার জন্য যাত্রী ও চালক সাধারণকে অনুরোধ জানিয়েছেন। শোকর গোজার যে তিনি অনুরোধ জানিয়েছেন, তা না করে হুকুম জারি করলেও আমাদের মানতে হতো। সাধারণ মানুষের আর কি করার আছে? তবে ১৫দিন আগ থেকে এই একই বিজ্ঞপ্তি জারি করে রাখলে আমরা অধম সাধারণ মানুষের কিছুটা উপকার হতো না? নিশ্চয়ই এই মেরামত কাজ হঠাত করে আসেনি।
বেখেয়াল প্রকৌশলী মনে হয় ভুলেই গেছেন যে আগামী কাল শুক্রবার থেকে সারা দেশব্যাপী খুনি, অপরাধীদের কব্জা করতে সাঁড়াশি অভিযান শুরু করবে সরকার। এ অবস্থায় দু’সপ্তাহের সড়ক বন্ধ, সরকারের অভিযানের অনুকূলে না প্রতিকূলে যাবে একবারও ভেবে দেখেছেন কি?
প্রকৌশলী মহাশয় মনেহয় সবকিছু চটজলদি করতে ভালবাসেন। তা বাসুন, কিন্তু নাদান পাবলিকদের সুবিধা অসুবিধার দিকে একটু নজর রাখলে আর কিছু না মিলুক, “লোকটি ভাল” এই কথাগুলুতো ভাগ্যে জুটতো! হতেই পারে, তিনি এসবের ধার ধারেন না।

*********************

ফিরে দেখা

Faiza a bengali bloosm

*************************
মনোরঞ্জন সেন আর নেই
MonoronjonSengupta

মৌলভীবাজারের প্রবীণ ব্যক্তিত্ব প্রসিদ্ধ বারোহাল সেনগুপ্ত পরিবারের মনোরঞ্জন সেনগুপ্ত আর নেই। গত মঙ্গলবার ৩১শে মে সন্ধ্যা ৭টায় গীর্জাপাড়াস্থ তার নিজ বাসভবনে পরলোক গমন করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ১০১ বছর।
প্রয়াত সেনগুপ্ত একজন নীরব সমাজসেবক ছিলেন। তিনি মৌলভীবাজার গীতা সমিতির প্রবীণতম সদস্য ছিলেন। সুদীর্ঘকাল প্রতিরোববারে তিনি স্থানীয় কালীবাড়ীতে ভাগবতগীতা পাঠ করেছেন। তিনি আসাম-বেঙ্গল আমলের ডিএসপি গগণ চন্দ্র সেনগুপ্তের কাকাতো ছোটভাই ও জাস্টিজ রণধির সেনগুপ্তের দাদু ছিলেন। প্রার্থনা নামে তার একখানা পুস্তক রয়েছে। আগামী ১লা জুলাই মৌলভীবাজারস্থ তার নিজবাস ভবনে শ্রাদ্ধানুষ্ঠান ও ৩রা জুলাই রোববার অষ্টপ্রহর কীর্তণ অনুষ্ঠিত হবে।


*************************

মৌলভীবাজার-রাজনগর সড়ক ব্যবহারে
১২ দিনে ক্ষতির পরিমান কোটি কোটি টাকা

খুলে দেওয়া হয়েছে শেরপুর সেতু
Wadud
আব্দুল ওয়াদুদ, মৌলভীবাজার
মৌলভীবাজারের-শেরপুর ব্রিজের সংস্কারের জন্য ১২ দিন বন্ধ থাকার পর গত সোমবার দিবাগত রাত ১২ টা থেকে খুলে দেওয়া হয়েছে সিলেট-ঢাকা মহাসড়ক। কাজ শেষ হওয়ার জন্য নির্ধারিত সময় ২২ জুন পর্যন্ত থাকলেও সংস্কার কাজ শেষ হয়ে যাওয়ায় তা খুলে দেওয়া হয়েছে।

গত ১২ দিন ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক বন্ধ থাকা অবস্থায় বিকল্প হিসেবে মৌলভীবাজার-রাজনগর-ফেঞ্চুগঞ্জ সড়ক ব্যবহার করতে হয়েছে জনসাধারণকে।

জানা যায়, সম্প্রতি ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে শেরপুর সেতুর উত্তর অংশের আরসিসি ঢালাই ভেঙে লোহার রড বেরিয়ে যায়। আরসিসি ঢালাই ভেঙে যাওয়ায় সড়ক ও জনপথ বিভাগ ভাঙা স্থানে পাথর বিটুমিন দিয়ে মেরামত করে লাল কাপড়ের নিশানা টানিয়ে দেয়। এ অবস্থায় সেতুর ওপর দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল করতে থাকে। ভাঙন ধরা স্থানে জরুরি মেরামত কাজের জন্য ৯ থেকে ২২ জুন পর্যন্ত ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের যান চলাচল বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়। তবে নির্ধারিত সময়ের আগেই কাজ শেষ হয়ে যাওয়ায় দুদিন আগেই তা খুলে দেওয়া হয়েছে

এদিকে শুধু সেতু মেরামত করতে গিয়ে মৌলভীবাজার-রাজনগর আঞ্চলিক মহাসড়ক ব্যবহার করে সাড়ে ৪ শত কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের শেরপুরে কুশিয়ারা নদীর উপর নির্মিত শেরপুর সেতু মেরামতের জন্য ১৩ দিনের জন্য বন্ধ ঘোষনা করার পর ১০ জুন শুক্রবার থেকে সকল যানবাহন ফেঞ্চুগঞ্জ-রাজনগর-মৌলভীবাজার-শ্রীমঙ্গল-হয়ে যাতায়াত করছে। হালকা যানবাহন চলাচলের জন্য তৈরী আঞ্চলিক মহা সড়ক দিয়ে ভারী যানবাহন চলাচল করায় স্থানে স্থানে রাস্তা ভেঙ্গে গর্ত হচ্ছে। অনেক স্থানে এ সব গর্তে পাথর বোঝাই ট্রাক আটকা পরে দীর্ঘ যানজটেরও সৃষ্টি হচ্ছে।
সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, সিলেট থেকে ফেঞ্চুগঞ্জ-রাজনগর-মৌলভীবাজার-শ্রীমঙ্গল-হয়ে মিরপুর পর্যন্ত আঞ্চলিক মহা সড়কের দৈর্ঘ ১০৫ কিলোমিটার। পাথর বোঝাই ভারী ট্রাক ১০৫ কিলোমিটার সড়কের উপর দিয়ে চলাচল করায় রাস্থার অনেক স্থানে উচু-নিচু ঢেউয়ের মতো হয়ে গেছে এবং ভেঙ্গে বিশাল বিশাল গর্ত হচ্ছে। প্রতি দিন পাথর বোঝাই ট্রাক রাস্তার এক পাশে দেবে গিয়ে মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে রাস্থার। রাস্থা ভেঙ্গে যে ক্ষতি হচ্ছে মেরামতে প্রায় সাড়ে ৪ শত কোটি টাকার প্রয়োজন হবে।

মৌলভীবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী উৎপল সামন্ত জানান, ৩০-৪০ টন ওজনের পণ্যবাহী ভারী যানবাহন চলাচলের জন্য এ রাস্থা তৈরী হয়নি। এ সব ভারী যানবাহন চলাচল করায় প্রতিনিই ক্ষতির পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। তিনি জেলা প্রশাসক বরাবরে ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধের বিষয়ে লিখিত ভাবে জানিয়েছেন। জানা গেছে, এ ধরনের রাস্তা প্রতি কিলো মিটার নতুন ভাবে নির্মান করতে গেলে ১০ থেকে ১২ কোটি টাকা প্রয়োজন হবে।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক মো. কামরুল হাসান বললেন, এতো ভাল রাস্থা নষ্ঠ হচ্ছে দেখে আমারও কষ্ট হচ্ছে, রক্তক্ষরণ হচ্ছে। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট দফতরে চিঠি লিখেছি।

সামাজিক সংগঠন আলোক ধারার যুগ্ন সম্পাদক হাসানাত কামাল জানান, ছিমছাম, পরিচ্ছন্ন, পিচঢালা শহরের চেহারাটা হটাৎ করেই পাল্টাতে শুরু করেছে। এমন সাজানো, গোছানো, শান্ত শহর এদেশে কমই আছে। সেই শহরের বুকের উপর দিয়ে যাচ্ছে বিশাল পাথর বোঝাই ট্রাক। সহ্য করতে না পেরে ক্ষতবিক্ষত মসৃণ পথটি পরিণত হয়েছে বিশাল বিশাল গর্তে। স্থানে স্থানে খানাখন্দ। এক সময় তাও গর্তে পরিণত হবে। চলাচলের অনুপযোগী হয়ে উঠবে সড়কটি।

বলা হচ্ছে এটা সাময়িক। শেরপুর সেতুর মেরামত কাজ শেষ হলেই ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক চালু হবে। কিন্তু যে ক্ষত তৈরী করে দিয়েছে তা কি সারাবে। অনেকের মতো আমিও সন্দিহান। কবে স্বাভাবিক হয়ে আগের অবস্থায় ফিরে আসবে শহরের সড়কগুলো। আর একবার ক্ষত হলে তা বারবার আক্রান্ত হবেই। অতি দ্রুত রাস্থার পূর্ণাঙ্গ মেরামতের দাবী করেন।
*************************

কুলাউড়ায় হরকতুল জিহাদ সদস্য গ্রেফতার

আব্দুল ওয়াদুদ: মৌলভীবাজার: ১৭ই জুন::
মৌলভীবাজারের কুলাউড়া থেকে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন হরকতুল জিহাদের সদস্য লুৎফুর রহমান হারুন (৩৭) কে গ্রেফতার করেছে কুলাউড়া থানা পুলিশ। সে কুলাউড়া উপজেলার উত্তর বুধপাশা এলাকার মজির উদ্দিনের পুত্র। পুলিশ জানায়, শুক্রবার ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে একটি দেশীয় পাইপ গান ও দুই রাউন্ড কার্তুজ সহ তাকে গ্রেফতার করা হয়। সে হরকতুল জিহাদের সক্রিয় সদস্য বলে জানিয়েছে পুলিশ। তার বিরোদ্ধে থানায় ওয়ারেন্টসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানান কুলাউড়া থানার ওসি শামছুদ্দোহা পিপিএম।
******************************

আইএস ঢুকে পড়েছে সর্বত্র

-মার্শা বার্নিকাট

thumbnail_IMG_6241bernicatতারা আমার জীবনের গতিপথ বদলে দিতে পারে বা আমার জীবন নিয়েও নিতে পারে। গত দেড় বছরে বাংলাদেশে বেশ কয়েকটি হত্যাকাণ্ডে আইএসের নাম প্রকাশ্যে এলেও বাংলাদেশ সরকার এই আন্তর্জাতিক জঙ্গিগোষ্ঠীর উপস্থিতি খারিজ করে আসছে। বাংলাদেশে একের পর এক হত্যাকাণ্ড এবং আইএসের দায় স্বীকার নিয়ে উদ্বেগ জানিয়ে আসা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত বলেন, আইএস এখন সর্বত্র। তারা সব জায়গায় পৌঁছে যেতে পেরেছে।

বর্তমান পরিস্থিতিতে জঙ্গি গোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দৃঢ় ঐক্যের প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেন তিনি। বার্নিকাট কারও নাম না নিয়ে বলেন, যদি কেউ বলে যে একে অন্যের সাহায্যের প্রয়োজন নেই, সেই ব্যক্তির বহুজাতিক সন্ত্রাসবাদ সম্পর্কে কোনও ধারণা নেই। এমনকী, আমেরিকাও বলতে পারে না যে আমাদের বাংলাদেশকে প্রয়োজন নেই বা আমাদের রাশিয়াকে প্রয়োজন নেই। ফ্লোরিডার অরল্যান্ডোতে হতাহতের ঘটনায় ‘সমব্যথী হয়ে’ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার কাছে শোকবার্তা পাঠানোয় বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করেন বার্নিকাট। বলেন, প্রেসিডেন্টের কাছে পাঠানো বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রীর চিঠি আমাদের স্পর্শ করেছে। আমাদের সমব্যথী হওয়া দরকার। সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবস্থানের প্রশংসা করে রাষ্ট্রদূত বলেন, শেখ হাসিনা যথার্থই বলেছেন, সন্ত্রাসবাদীদের কোনও দেশ নেই এবং তাদের কোনও ধর্ম নেই।(বর্তমান থেকে)।
*********************************

********************************* ‌‌

আসল ঘটনাকে আড়াল করতেই...

1466250590RijviBNP
জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাসবাদের আসল ঘটনা আড়াল করতেই মাদারীপুরের কলেজ শিক্ষক রিপন চক্রবর্তী হত্যাচেষ্টা মামলায় রিমান্ডে থাকা গোলাম ফাইজুল্লাহ ফাহিমকে ক্রসফায়ারে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। দলটি বলছে, ‘সরকার তাকে (ফাহিম) ক্রসফায়ারের নামে গুলি করে হত্যা করল, হত্যা করা মানে প্রকৃত ঘটনা আড়াল করা। এটাকে সামনে আসতে দিল না। আমরা আগেই বলেছি প্রতিটি সন্ত্রাসের সঙ্গে রাষ্ট্রের একটা সম্পর্ক আছে। আমাদের দলের চেয়ারপারসন বলেছেন উগ্রবাদী চক্রের সঙ্গে সরকার জড়িত। এই যে আজকে ঘটনাটিতে যে ঘনকুয়াশা তৈরি করেছে সরকার। এর সঙ্গে সরকার জড়িত।’

শনিবার নয়াপল্টনে বিএনপির কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী এসব কথা বলেন।

মাদারীপুর সরকারি নাজিমউদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের গণিত বিভাগের প্রভাষক রিপন চক্রবর্তীকে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় আটক রিমান্ডে নেয়া গোলাম সাইফুল্লাহ ফাহিম পুলিশের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহতের ঘটনায় প্রতিক্রিয়ায় রিজভী বলেন, তাকে ‘রিমাণ্ডে নিয়েছিলেন, ওখানে উচিত ছিল আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আরো কারা জড়িত সেটা উদঘাটন করা। তাকে আইনি প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে নিয়ে যাওয়া হতো। তার কাছ থেকে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নেয়া যেত। যাচাই-বাছাই করে জানা যেতো এরা প্রকৃত জঙ্গি কী না, জানা যেতো আর কারা কারা জড়িত। এটা জনসন্মুখে উদ্ভাসিত হতো তাদের নামগুলো জানা যেতো।

সমপ্রতি সাঁড়াশি অভিযান সম্পর্কে রিজভী বলেন, জঙ্গি দমনের নামে প্রহসনের এক চরম নাটক অনুষ্ঠিত করছে সরকারি দায়িত্বশীল লোকেরা। মামলা হচ্ছে, তদন্ত হচ্ছে, কিন্তু কুপিয়ে হত্যাকারী প্রকৃত অপরাধীরা অধরাই থেকে যাচ্ছে। হত্যা রহস্যের কোন কুল-কিনারাই বের হচ্ছে না। অথচ সরকারি বাহিনী ক্ষুধার্থ নেকড়ের মতো গ্রাম, শহর, নগর, বন্দরে হামলা করেছে। বিরোধী দলের নেতা-কর্মীরা-যারা গ্রেফতার হয়নি তারা দিশেহারা হয়ে প্রাণ ভয়ে অজানা গন্তব্যে পাড়ি জমিয়েছে। তিনি বলেন, সরকার জঙ্গি ততপরতা দমন করতে যে নিষ্ঠুর পদ্ধতি গ্রহণ করেছে সেটিতে প্রকৃতপক্ষে জঙ্গিদের উতপাত বন্ধ নয়, বরং সরকার যে একটা বিশেষ এজেন্ডা নিয়ে কাজ করেছে, সেটি এখন সুস্পষ্টভাবে প্রতিভাত হচ্ছে। তাদের সেই এজেন্ডাটা হচ্ছে বিএনপিসহ গণতান্ত্রিক আন্দোলনের কর্মীদেরকে জঙ্গি হিসেবে চিত্রিত করা।
**********************************

হারিয়ে যাওয়া দিনগুলি

পুরনো কাগজ ঘাটাঘাটি করতে গিয়ে ২০১৩ সালের মৌলভীবাজার সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় শতবর্ষ মিলন মেলার কয়েকটি ছবি পেয়ে সেগুলো আকাঙ্খী পাঠকদের জন্য পত্রস্ত করে দিলাম।

image

শীতের সকাল, কুয়াশা ভেজা মেলা প্রান্তর। কেমন যেনো হাতছানি দিয়ে ডাকে।

image

মেলা ঘাট পাড় হয়ে ভেতরে যাবার অনুমতি সংগ্রহের ভিড়

image

মেলার উদ্বোধনী পর্বে প্রাক্তনরা পতাকা উড়িয়ে মেলার উদ্বোধন করেন

image

পতাকা উত্তোলনের আরেক প্রান্তে

image

গর্বিত প্রাক্তনদের সাথে আমি, নিচে বসে

********************************
Moniruzzaman-miah

অধ্যাপক মনিরুজ্জামানের ইন্তেকাল

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ভাইস চেঞ্চেলার অধ্যাপক মনিরুজ্জামান মিয়া গেল সোমবার বেলা ১২টার দিকে ঢাকার স্কোয়ার হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। তিনি দীর্ঘদিন যাবত বার্ধক্য জনিত নানা সমস্যায় ভুগিছিলেন।
অধ্যাপক মিয়া ১৯৯০ থেকে ১৯৯২ এ দু’বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চেঞ্চেলার হিসাবে দায়ীত্ব পালন করেন।
**********************************

রাজনগরের খেয়াঘাট বাজারে সিএনজিসহ ৩ ব্যক্তি আটক

আব্দুল ওয়াদুদ ১৫ই জুন
আটককৃতরা হলো উপজেলার মোকামবাজারের মুনিয়ার পাড় এলাকার সেমা মিয়ার পুত্র আনকার মিয়া গোলাপগঞ্জ উপজেলার লক্ষিপাশা এলাকার আব্দুল মান্নানের পুত্র তোফায়েল আহমদ ও বিশ্বনাথ উপজেলার হারিকোনা এলাকার আলকাছ মিয়ার পুত্র বাদশা মিয়া।
খেয়াঘাট বাজার অটোরিক্সাচালক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জিলু মিয়া বলেন, তারা কৌশলে গাড়ির নাম্বার মুছে বিক্রি করার উদ্দেশ্যে এখানে আসছিল।
এসআই নুর নবী জানান, গাড়ি নষ্ট হওয়ায় তারা ঐ বাজারে একটি ওয়ার্কশপে নিয়ে নিজেরাই কাজ করছিল এমন গোপন সংবাদ পেয়ে ওই স্থান থেকে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। তিনি আরো বলেন, গোলাপগঞ্জ থেকে একজন দাবী করেছেন গাড়িটি তার। সঠিক প্রমাণ পেলে গাড়ী পাঠিয়ে দেয়া হবে।
*********************************

বাংলাদেশ সৌদি আরবে সেনা পাঠাবে

মুক্তকথা: সোমবার ১৩ইজুন ২০১৬ ইংরাজী:
পবেত্র দুই মসজিদের (কাবা ও মসজিদে নববী) নিরপত্তার প্রয়োজনে সৌদি আরবে সেনা পাঠাবে বাংলাদেশ। সৌদি আরব সফর সম্পর্কে মন্ত্রী সভাকে অবহিত করে দাখিল করা একটি প্রতিবেদনে এ কথা উল্লেখ করেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার মন্ত্রীসভার বৈঠক শেষে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান মন্ত্রী পরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম। এর আগে বেলা ১১টায় জাতীয় সংসদের মন্ত্রীপরিষদ কক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রীসভার বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বিশেষ প্রতিনিধি, এনআরবি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম এর বরাত দিয়ে অনলাইন ‘প্রবাসী বার্তা’ এ খবর দিয়েছে।
মন্ত্রী পরিষদ সচিব বলেন, গত ৩ থেকে ৭জুন প্রধানমন্ত্রী সৌদি আরব সফর করেছেন। এ সফরে বাংলাদেশের বড় অর্জন রয়েছে, বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরব আগামীতে পাঁচ লাখ শ্রমিক নেবে। বাংলাদেশি শ্রমিক এক কোম্পানী থেকে অন্য কোম্পানীতে চুক্তি (আকামা) বদল করে কাজের সুযোগ পাবেন।
সচিব বলেন, সফরকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সৌদি বাদশা সালমানসহ শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। সেখানে দুই পবিত্র সমজিদের নিরাপত্তার প্রয়োজনে বাংলাদেশের সেনাবাহিনী পাঠানোর বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।
বাংলাদেশ সৌদি সামরিক জোটে অংশ নিচ্ছে কি-না জানতে চাইলে শফিউল আলম বলেন, সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটে যোগদানের বিষয়ে প্রতিবেদনে কিছু উল্লেখ করা হয়নি। প্রতিবেদনে শুধু বলা হয়েছে, দুই পবিত্র মসজিদের নিরাপত্তা রক্ষার প্রয়োজনে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী পাঠাবে। এর বাইরে প্রতিবেদনে কিছু উল্লেখ নেই। প্রসঙ্গতঃ ২০১৫ সালের ১৫ ডিসেম্বর সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বাংলাদেশ সহ ৩৪টি দেশ নিয়ে নতুন সামরিক জোট গঠনের ঘোষণা দেয় সৌদি আরব। বলা হয়, দেশটির রাজধানী রিয়াদ থেকে এ জোটের কার্য্যক্রম পরিচালিত হবে। বাংলাদেশ ছাড়া জোটের সদস্য দেশগুলো হল: সৌদি আরব, জর্ডান, সংযুক্ত আরব আমিরাত, পাকিস্তান, বাহরাইন, বেনিন, তুরস্ক, সাদ, টুগো, তিউনিসিয়া, জিবুতি, সেনেগাল, সুদান, সিয়েরেলিয়ন, সোমালিয়া, গেবন, গিনি, ফিলিস্তিন, কমোরস, কাতার, আইভরিকোষ্ট, কুয়েত, লেবানন, লিবিয়া, মালদ্বীপ, মালি, মালয়েশিয়া, মিশর, মরক্কো, মৌরিতানিয়া, নাইজার, নাইজেরিয়া ও ইয়েমেন।
এদিকে, সম্প্রতি কয়েকটি দেশের চাপের মুখে জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন জোটকে ইয়েমেনে শিশু হত্যার জন্য করা কালো তালিকা থেকে বাদ দেন। জাতিসংঘকে চাপ দেয়া দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশও আছে।
*******************************
মৌলভীবাজারে শিবির সভাপতি আটক

পুলিশের সাঁড়াশি অভিযান

মোট আটক ৬ জন

আব্দুল ওয়াদুদ: মৌলভীবাজার: শনিবার ১১ই জুন::
মৌলভীবাজারে সাঁড়াশি অভিযানে জেলা শিবির সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মাহফুজ সুমন সহ আরো ৫জনকে আটক করেছে পুলিশ।
শিবিরের দলীয় সূত্র জানায়, শিবির সভাপতি সুমন তার গ্রামের বাড়ী বড়লেখা উপজেলার বর্ণি ইউনিয়নের পাকশাইল গ্রামে রোববার ভোরে ফজরের নামাজ পড়ার পর মসজিদ থেকে বাহিরে বের হচ্ছিলেন। এ সময় অভিযান চালিয়ে আটক করে বড়লেখা পুলিশ। এদিকে, মৌলভীবাজার জেলা শহরে শনিবার রাতে অভিযান চালিয়ে আরো ৫জনকে আটক করেছে পুলিশ।
আটককৃতরা হলো- আক্তার মিয়া(২০), আবুল কালাম বাদল(১৯), জাকির হোসেন(২০), রুমন মিয়া(১৮) ও সোহেল আহমদ(১৯)। তবে বড়লেখা থানার ওসি মনিরুজ্জামান রোববার দুপুর সাড়ে ১২টায় বলেন, অভিযান চলছে। এখনও আমাদের হাতে আসে নাই।
*********************************

শ্রীমঙ্গলে ভূয়া রেব কমান্ডার গ্রেপ্তার

আব্দুল ওয়াদুদ: মৌলভীবাজার: শনিবার ১১ই জুন::
FalseRABcommander
মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল থেকে আব্দুল করিম নামে এক ভূয়া রেব কমান্ডারকে আটক করেছে রেব-৯। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রেব-৯ শ্রীমঙ্গল ক্যাম্পের সিনিয়র এ এসপি মোঃ হায়াতুন্নবীর নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় শ্রীমঙ্গলের ভাড়াউড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
গ্রেপ্তারকৃত আব্দুল করিম কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার জুজুয়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের পুত্র। সে বর্তমানে শ্রীমঙ্গলের ভাড়াউড়া এলাকায় বসবাস করছে। বেব-৯এর শ্রীমঙ্গল ক্যাম্পের ডিএজি সাইফুল ইসলাম জানান, নিজেকে রেব সদস্য দাবী করে চাকুরী দেবে বলে সে চুনারুঘাটের শামসুদ্দিন মিয়ার কাছ থেকে নগদ ৭৫হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। পরে চাকুরী না পাওয়াতে শামসুদ্দীনের সন্দেহ হলে চুনারুঘাট থানায় মামলা করেন। চুনারুঘাট থেকে মামলাটি রেব-৯ শ্রীমঙ্গল ক্যাম্পের কাছে আসলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এই ভূয়া রেব পরিচয়দানকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়।
********************************
৬সন্তান রেখে ভিন্ন মা-বাবার
অভিন্ন প্রেম

Wadud
লিখেছেন আব্দুল ওয়াদুদ
রোববার: ২৯শে জ্যৈষ্ঠ ১৪২৩বাংলা, ১২জুন ২টা ১৫মিনিট:

সন্তানকে ফেলে রেখে রাজনগরের জাহিদপুরে এক মা চলে গেলেন অন্যের সাথে! তেমনি ৩সন্তানকে ফেলে এক বাবাও চলে গেলেন ভিন্ন মহিলার সাথে।
এটা ভাব না ভালবাসা নাকি অন্য সামাজিক কারণ, বলা মুষ্কিল। কিন্তু সন্তান ফেলে রেখে মা চলে গেছেন অন্য মানুষের সাথে, ঘটনার রূপ এমনই!
৩সন্তান ফেলে মা আর আরো ৩সন্তান ফেলে বাবা ভালবাসার ঘর বাঁধতে, বাঁধা ঘর ভেঙ্গে নিরুদ্দেশ হয়েছেন। দু’জন দু’জনের ইচ্ছেমত ঘর ছেড়েছেন, কেউ আটকাবার ফুরসতই পায়নি। তবে গ্রামীণ মাতব্বর একদফা বিষয়টি নিয়ে নাড়া-চাড়া করেছিলেন। মাতব্বর রূপা মিয়া রেজিয়া বেগমকে বুঝিয়ে বলেছিলেন একা একা বাজারে না যেতে। রেজিয়া বেগম তবুও বাজার ছাড়েননি। অবশেষে সন্তানের মায়া পরিত্যাগ করে তিনি তার প্রিয় মানুষের হাত ধরে চলে গেছেন।
হতেই পারে একে অপরকে গভীরভাবে ভালবাসেন। কেউ অপর কাউকে ভালবাসতেই পারে, সে অধিকার তাদের আছে। তবে ঈন্দ্রিয় তাড়নায় সাময়িক ভালবাসার ছলনাও হতে পারে। কে কা’কে, কোন ছলনায় ভুল পথে নিয়ে গেলেন, না-কি মূলে গভীর ভালবাসা ছিল, তা-ও একদিন জানা-জানি হবে। লুকিয়ে থাকবেনা।
কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে দুই পরিবারের ৬টি সন্তান নিয়ে। সন্তানদের বয়সের বিষয়ে স্পষ্ট কিছু না জানলেও এটি নির্দ্বিধায় বলা যায় যে ৬সন্তানের সকলেই বড় বড় হয়ে গেছেন, এমন ভাবার কোন কারণ নেই। আমাদের ধারণা, কম করে হলেও উভয় পক্ষে ৩/৪টি শিশু-কিশোর হবে যারা এখনও দুনিয়া বুঝে উঠতে পারেনি। আর ভালবাসাতো এদের ভাগ্যে জুটেনি মা-বাবা যেখানে বৈরি! বিড়ম্বনার দিনযে এদের খুবই কাছে তাতো বুঝাই যাচ্ছে। স্বাভাবিক প্রশ্ন এখন এদের কি হবে? এক পক্ষের বাবা প্রবাসে আর অপর পক্ষের জনতো ভালবেসে স্বর্গধামে রওনা দিয়েছেন, উর্মিলাকে নিয়ে নাচবেন!
আঙ্গুর মিয়া, যে প্রবাসী স্বামী, স্ত্রী-সন্তান নিয়ে জীবনের মধুমাখা আনন্দ আহ্লাদের অভিলাসকে বিসর্জন দিয়ে শুধুমাত্র জীবন গড়ার তাগিদে রুটি-রুজির বুকভরা আশায় বিদেশ পাড়ি জমিয়েছিলেন, এ ঘটনা তার সাজানো সংসার নামক তার স্বর্গের এডেনকে লন্ড-ভন্ড করে দেবেনাতো?
আঙ্গুর মিয়ারা গ্রামীণ খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ। এতো জৌলুসি জীবনের অধিকারী এরা নয়। সামান্য আনন্দ নিয়ে থাকতে পারলেই এরা খুশী। এ ঘটনা তাকে বিপর্যস্ত করবে ঠিকই তবে তিনি কি স্ত্রী রোজিনাকে অবহেলার চোখে দেখতেন? না-কি রোজিনা চরিত্রে হীনতা ছিল? সন্তানদের বয়োবৃদ্ধি আর জীবনের মোড়ে মোড়ে অন্য মানুষদের মত তাদের মনেও এমনতরো কত প্রশ্নই তাড়া করে ঘুরাবে, বেঁচে থাকার শেষ লগ্ন অবদি, রেজিয়া-কাইয়ুমের প্রেমিক মনের চেতনে কি কখনও এসব দোলা দিয়েছিল বা দেবে, কে জানে?
কি হয়েছিল পড়ুন, সাংবাদিক ওয়াদুদের দেয়া বিবরণে:
হাজারো মানুষকে সাক্ষী রেখে একে অপরের জীবনের দায়ীত্ব নিয়ে যে সংসার সাজিয়ে নেবার শপথ করেছিলেন, স্বামী-স্ত্রী দু’জনেই দু’জনকে ঠকালেন! শপথ নিয়ে পাতা ঘর ভেঙ্গে দিয়ে পালিয়ে গেলেন দু’জনেই। তাদের প্রেমের খেলা লীলা হয়ে হয়তো থাকবে ৬টি মানব সন্তানের আগামীর জীবনে।
জীবন রঙ্গমঞ্চের নাটকীয় এই ঘটনাটি ঘটেছে রাজনগর উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নের জাহিদপুর গ্রামে। এই গ্রামের ওমান প্রবাসী সারং মিয়া উরফে আঙ্গুর মিয়ার স্ত্রী রেজিয়া বেগম(৩ সন্তানের জননী) পার্শ্ববর্তী আব্দুল্লাহপুর গ্রামের অটোরিক্সা চালক আব্দুল কাইয়ুম(৩ মেয়ে সন্তানের জনক)এর সাথে গত শুক্রবার দিন-দুপুরে বাড়ী ছেড়ে উদাও হয়েছেন।
গাড়ীচালক কাইয়ুম খেয়াঘাট বাজারে, এলাকার ইসমাইল মেম্বারের একটি বাসায় ভাড়াটিয়া হয়ে বসবাস করে আসছিলেন অনেকদিন ধরে। বর্তমানে কাইয়ুমের প্রথমা স্ত্রী তাদের ৩ সন্তান নিয়ে ওই বাসায়ই আছেন। আর সন্তানদের বাবা কাইয়ুম তার মনের মানুষ রেজিয়া বেগমকে নিয়ে নিরুদ্দেশ আছেন।
ঘটনার পুরো বিবরণী জানতে জাহিদপুর গ্রামের রুপা মিয়ার সাথে আলাপ হলে তিনি জানান, সারং বিদেশে থাকার সুবাদে ওই গৃহবধু বিবাহের উপযোগী এক মেয়ে ও দুই ছেলেসহ শাশুরীকে নিয়ে স্বামীগৃহে বসবাস করে আসছেন অনেকদিন। ঘরের বাজার খরচ করতে গৃহবধু নিজে স্থানীয় খেয়াঘাট বাজার, আব্দুল্লাপুর ও বালাগঞ্জ বাজারে গিয়ে নিজের চাহিদামত বাজার-হাট করতেন। যাতায়াতে এরই মধ্যে পরিচয় হয় সিএনজি চালক আব্দুল কাইয়ুমের সাথে। দেয়া-নেয়া হয় মোবাইল নাম্বার। গৃহবধু কাইয়ুমকে ফোন দিলেই মূহুর্তেই চলে এসে বাজার হাটে নিয়ে যায়। রূপা মিয়া আরো বলেন-এভাবে মাঝে-মধ্যে মোবাইলে বলে দিলেই কাইয়ুম গৃহবধুর টুকটাক খরচ বাড়ী এনে দিয়ে যেতো। পরে বিষয়টি তার শ্বাশুরীর কাছে ধরা পড়লে স্থানীয়রাসহ আমি গৃহবধুর বাড়ীতে বসে কাইয়ুমের সাথে যোগাযোগ না করতে এবং বাইরে গিয়ে বাজারসদাই না করতে অনুরোধ করি। তার যা’কিছু প্রয়োজন, তার স্বামীর লোকজন বাড়ীতে এনে দেবেন বলে তাকে নিশ্চয়তা দেই। কিন্তু শ্বাশুরী বাড়ীতে না থাকায়, সুযোগ নিয়ে গত শুক্রবার রেজিয়া বেগম ২ছেলেসহ দিন-দুপুরে লাপাত্তা হয়। তখন বাড়ীর লোকজন ভাবছিল হয়ত: বাপের বাড়ী গেছেন। ঘটনার পরদিন বাপ জাহিদপুর আসলে বিষয়টি খুলাশা হয়। তখন ধরা পড়ে যে সে বাপের বাড়ী যায়নি বরং সে যে কাইয়ুমের সাথেই গিয়েছে তা সকলেই অনুমানে বুঝতে পারেন।
এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে ওমান প্রবাসী স্বামী জ্ঞান হারিয়ে ৩ সন্তানের ভবিষ্যত ভেবে দিশেহারা হয়ে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন। পথ চলতে পারছেন না প্রবাসে। সবারই মনে প্রশ্ন, শেষ পর্যন্ত এদের ভালবাসা যদি টিকেও যায় তা’হলে এই নাবালক সন্তানগুলির ভবিষ্যত কি হবে? কে নেবে এদের দায়ীত্ব? সবই ভবিতব্য!

**********************************

যুক্তরাজ্য জাসদ কার্য্যকরী পর্ষদের সভা

গত ৩১শে মে পূর্ব লন্ডনের ব্রিকলেনের একটি রেঁস্তোরায় যুক্তরাজ্য জাসদ কার্য্যকরী পরিষদের সভা অনুষ্ঠিত হয়।
প্রবীণ জাসদ নেতা, যুক্তরাজ্য জাসদের সভাপতি বীর মুক্তিযুদ্ধা সাংবাদিক হারুনূর রশীদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় জাসদের নবনির্বাচিত শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক জাসদ নেতা শামীম আহমদ। সভার শুরুতে যুক্তরাজ্য জাসদের সভাপতি হারুনূর রশীদ তার প্রারম্ভিক বক্তব্য পেশ করেন। এরপর সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবুল মনসুর লিলু সাংগঠনিক এবং রাজনৈতিক বিভিন্ন বিষয়াদির উপর তার লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহজাহান।
সভায় গৃহীত প্রস্তাবে গত ফেব্রুয়ারীতে জাসদের ‘জাতীয় কাউন্সিল ২০১৬’তে বীর মুক্তিযোদ্ধা, মহাজোট সরকারের সফল তথ্য মন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি, দলের সভাপতি এবং ’৯০ সশকের ছাত্র আন্দোলনের বলিষ্ট নেত্রী শিরিন আখতার এমপি, সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত নির্বাচিত হওয়ায় যুক্তরাজ্য জাসদের পক্ষ থেকে সংগ্রামী শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জ্ঞাপন করা হয়। একই প্রস্তাবে সিলেট জাসদের সভাপতি লোকমান আহমদ, কেন্দ্রীয় জাসদের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক, সাবেক আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক শামীম আহমদ, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক এবং মৌলভীবাজার জেলা জাসদের সভাপতি আব্দুল হক, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় তাদেরকেও অভিনন্দন জানানো হয়। ব্যাপক আলাপ আলোচনার পর সভায় গৃহীত অপর প্রস্তাবে, হাসানুল হক ইনু এবং শিরিণ আখতারের নেতৃত্বে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের হাতকে শক্তিশালী করে মৌলবাদ জঙ্গিবাদ বিরুধী আন্দোলনকে এগিয়ে নিয়ে যাবার জন্য বাংলাদেশ এবং বহির্বিশ্বের সকল জাসদ নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান হয়। সভায় যুক্তরাজ্য জাসদের সাংগঠনিক বিভিন্ন বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
সভায় সক্রিয় আলোচনায় অংশ নেন যুক্তরাজ্য জাসদের সাবেক কার্যকরী সভাপতি প্রবীণ জাসদ নেতা সামসুল আবেদীন নেসওয়ার, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, ইউরোপীয়ান জাসদের যুগ্ন আহ্বায়ক মতিয়ুর রহমান মতিন, সহসভাপতি মুজিবুল হক মণি, সহসভাপতি আব্দুল হালিম চৌধুরী, সহসভাপতি আসাদুল হক আযাদ, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহজাহান, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ও বারমিংহাম জাসদের আহ্বায়ক সালেহ আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন খাঁন শামীম, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী দেলোয়ার হোসেন, দপ্তর সম্পাদক সামসুজ্জামান সাবুল, ভারপ্রাপ্ত প্রচার ও যোগাযোগ সম্পাদক এমরান আহমদ, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুর রহমান শাহনূর, সহসম্পাদক মাসুক হোসেন, জাসদ নেতা অলিউর রহমান, হেলাল আহমদ, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা সৈয়দা বিলকিস মনসুর, জাসদ নেত্রী ও যুক্তরাজ্য নারী জোটের আহ্বায়িকা রুবি হক, জাসদ নেত্রী ও যুক্তরাজ্য নারী জোটের যুগ্ন আহ্বায়িকা রেহানা বেগম এবং জাসদ নেত্রী যুক্তরাজ্য নারীজোটের কোষাধ্যক্ষ জোতস্না বেগম। সভা শেষে এক নৈশভোজে সকলকে আপ্তায়িত করা হয়।–(সংবাদ বিজ্ঞপ্তি)
*****************************
লন্ডনে বি বি চৌধুরীর নাগরিক শোকসভা
IMG_8413প্রতিকৃতি: ডাঃ বেনু ভূষণ চৌধুরী। একেছেন- সামাদ।
মুক্তকথা: বুধবার ২৫শে জ্যৈষ্ঠ ১৪২৩ বাংলা: ৮ই জুন ২০১৬ সাল:/font
লন্ডন প্রবাসী খ্যাতিমান চিকিতসক ও মানবতাবাদী রাজনীতিক, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি যুক্তরাজ্য শাখার সভাপতি ডা. বেনু ভূষণ চৌধুরীর (বি বি চৌধুরী) স্বাভাবিক মৃত্যু নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে এর তদন্ত দাবি করেছেন তার স্বজনরা। গেল শনিবার পূর্ব লন্ডনের অক্সফোর্ড হাউসে প্রয়াত ডা. চৌধুরী স্মরণে আয়োজিত এক নাগরীক শোক সভায় এই দাবী উত্থাপন করেন তারই ঘনিষ্ট অনুসারী ও বৃটেনের সুপরিচিত বাংগালী আইনজীবী ব্যারিস্টার মনোয়ার হোসেন।
image
image
প্রয়াত ডা. চৌধুরীর জীবনী পাঠ দিয়ে শুরু হয় আলোচনা। জীবনী পাঠ করেন শাহেদা ইসলাম।
এতে প্রয়াত বি বি চৌধুরীর ছেলে সঞ্জয় চৌধুরীসহ কমিউনিটির শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ বক্তব্য রাখেন। ব্যারিস্টার মনোয়ার হোসেন তার বক্তৃতায় ডা. চৌধুরীর স্বাভাবিক মৃত্যু নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে বলেন, ঢাকার গাজীপুরে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার পর ডা. বি বি চৌধুরী নিজেই হেটে হেটে পার্শ্ববর্তী হাসপাতালে গিয়েছিলেন। অথচ হাসপাতাল থেকে, “আক্রান্ত হওয়ার সাথে সাথেই ডা. চৌধুরী তার আবাসস্থলেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন” এমন কয়টি কথা, হাতে লিখা একটি কাগজে লিখে তার মৃত্যু হয়েছে জানিয়ে দেয়া হয়। ব্যারিস্টার মনোয়ার বলেন, চট্টগ্রামে ডা. চৌধুরীর কিছু সম্পত্তি বিভিন্নজন ব্যবহার করছিলেন। মৃত্যুর পর পর এদের কেউ কেউ এইসব সম্পত্তি জীবিতাবস্তায় বিবি চৌধুরী তাদের দান করে গেছেন বলে ভূয়া কাগজপত্র উপস্থাপনের চেষ্টা করেন। এমনকি ডা. চৌধুরীর ছেলে সঞ্জয় চৌধুরী বাবার শেষকৃত্য সম্পন্ন করতে দেশে গেলে চট্টগ্রামে না যাওয়ার জন্য তাকে হুমকিও দেয়া হয়।
ছবি-ডলি ইসলাম/একাউন্টেন্ট আব্দুর রৌপ
মনোয়ার আরো বলেন, বাবার শেষকৃত্য সম্পন্ন করতে সঞ্চয় চৌধুরী চট্টগ্রাম গিয়ে পৌঁছার পর পরই তাকে পেতে হয় বিভিন্ন নমুনার হুমকি। তিনি বলেন, মৃত্যুর আগে প্রয়াত ডা. বি বি চৌধুরীর সাথে কারা দেখা করতে এসেছিল, তাদের সাথে কি কথা হয়েছে ডা. চৌধুরীর, এসব বিষয় তদন্ত হবার প্রয়োজনীয়তা আছে। তিনি আরো বলেন, যে মানুষটি সারাজীবন ব্যায় করেছেন মানুষের সেবায়, মানবতাই ছিল যার ধর্ম, সেই মানুষটির স্বাভাবিক মৃত্যু নিয়ে আমরা সন্দেহে থাকতে চাইনা। আমরা ডা. চৌধুরীর মৃত্যুর সুষ্টু তদন্ত চাই।
ছবি-আশরাফ উদ্দীন/ডা. আব্দুস সাত্তার
শোক সভায় উপস্থিত সকলেই, সুষ্টু তদন্তের মাধ্যমে প্রয়াত বি বি চৌধুরীর মৃত্যু রহস্য উদ্ঘাটনের দাবী জানিয়েছেন। সভায় বক্তব্য রাখেন লন্ডন বারা অব টাওয়ার হেমলেটস এর স্পীকার কাউন্সিলাম খালিছ উদ্দীন, মুক্তিযুদ্ধের প্রবীন প্রবাসী সংগঠক, যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ সভাপতি সুলতান শরিফ, বিশিষ্ট কম্যুনিটি নেতা মাহমুদ এ রৌপ, উদীচী শিল্পী গুষ্ঠীর সাবেক সভাপতি ডা. রফিকুল হাসান খান জিন্নাহ, ডা. আব্দস সাত্তার, কমিউনিটি নেতা লেখক আব্দুল আজিজ তকি, যুক্তরাজ্য একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সম্পাদক সৈয়দ আনাশ পাশা, সিপিবি’র সম্পাদক সৈয়দ এনামূল ইসলাম, জাসদ সভাপতি এডভোকেট সম্পাদক হারুনূর রশীদ, বেঙ্গলী ইন্টারন্যাশনেলের জামাল খানসহ আরো অনেকে।
ছবি- ব্যারিস্টার মনোয়ার হোসেন/ডাঃ রফিকুল হাসান খান জিন্নাহ,
নাগরিক শোকসভা কমিটির সদস্য সচিব শাহরিয়ার বিন আলি’র পরিচালনায় অনুষ্ঠিত শোক সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন কমিটির আহ্বায়ক আনসার আহমদ উল্লা।
ছবি- সাংবাদিক আনাশ পাশা/ সৈয়দ এনামূল ইসলাম/আব্দুল আজিজ তকি/আনসার আহমদ উল্লা/এডভোকেট সাংবাদিক হারুনূর রশীদ
অনুষ্ঠান শেষে সত্যেন সেন স্কুল অব পারফরমিং আর্টস ও উদীচী শিল্পী গুষ্ঠীর শিল্পীরা গান দিয়ে স্মরণ করেন প্রয়াত ডা. বেনু ভুষণ চৌধুরীকে।
এই গেল ১লা মে, ঢাকার গাজীপুরে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ডা. বেনু ভূষণ চৌধুরী। মৃত্যুর সময় তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী চন্দ্রা সুরিয়া, দুই ছেলে ডা. সঞ্জয় চৌধুরী ও সঞ্জিত চৌধুরীসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।
ছবি- জীবনী পাঠ করছেন শাহেদা ইসলাম/নেতৃবৃন্দ/জামাল খান/মাঝখানে বেণু ভূষণ চৌধুরীর পুত্র ডাঃ সঞ্জয় চৌধুরী তার বাবার ষঢ়যন্ত্রমূলক মৃত্যু রহস্য খোলাসা করার কাজে সহায়তার জন্য যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ সভাপতিকে অনুরোধ করছেন। পাশেই ব্যারিস্টার মনোয়ার।/সভায় উপস্থিতির সামনেই প্রয়াত বেণু ভূষণের পুত্র ডাঃ সঞ্জয় চৌধুরীকে দেখা যাচ্ছে।
******************************

মানুষ দেখে দেখেই শিখে

IMG_6135

শিশুদের সব কাজই নান্দনিক। আনন্দদায়কতো বটেই। দুনিয়ার কোন মানুষই স্বর্গ-নরক কখনও দেখেনি আর কোনদিন দেখার বিষয়ও নয়। তবে শিশুকর্মে মানবকূল কল্পিত স্বর্গের সেই আভা আস্বাদন করে। শিশুর হাসি সে তো অতুলনীয়, শিশুর কাঁদা ও মোহনীয়, মায়াবী এক আবেশে মানব মনে স্বর্গীয় সে অনুভুতি এনে দেয়। তার মাঝে এমন কিছু কিছু কাজ আছে যা সকল নান্দনিকতাকেও ছাড়িয়ে যায়। মাত্র ৫মাস বয়সের এমন একটি শিশুকে দেখুন, কি যেনো অনুশীলন করছে সে? সৃষ্টিতে মানুষের কাছে এর চেয়ে স্বর্গীয় অনুভুতি আর কিছু নেই বলেই বলতে হয়। এ এক ভাষাহীন মোহনীয় আনন্দ যা ভূবনে অতূলনীয়। পরক করুন শিশুটিকে, এখন থেকেই তার চেষ্টার শুরু, সে কথা বলতে চায়। দেখুন জীবনের শুরুটা।
*********************************

মৌলভীবাজারের শেরপুর ফেরিঘাট

সত্তুরের দশক পর্যন্ত এই ছিল শেরপুর ফেরিঘাট।
imageফেরির ছবি(ফেইচবুক থেকে গৃহীত)

August 2016
M T W T F S S
« Jul    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031