কাশিমপুর পাম্প হাউজে ৭৮ কোটি টাকার নতুন যন্ত্র স্থাপন কিন্তু সুফল নিয়ে দ্বিধা-দ্বন্দ্ব

মৌলভীবাজার অফিস।। কাশিমপুর সেচ ঘর (কাশিমপুর পাম্প হাউজ)। পানিউন্নয়ন বোর্ডের কর্তৃত্বে মনুপ্রকল্প নামে মূলতঃ কাউয়াদীঘি হাওর প্রকল্পের এ কাজ শুরু হয়েছিল পাকাস্তানী আমলের শেষের দিকে। শেষ হয়েছিল ১৯৮৩সালে। শুরু থেকে আজ অবধি বয়স হয়েছে সুদীর্ঘ ৪৯ বছর। প্রকল্প সম্পন্নের ‘৮৩সাল থেকে আজ ২৮ বছর। এ সময়ের মধ্যে কোন কালেই এই প্রকল্পের সুনাম শুনা যায়নি। আধা সরকারী কর্মচারী আর ঠিকাদারদের অর্থ আত্মসাতের বহু কাহিনী শুনা গিয়েছে অতীতেও এখনও। অথচ এই প্রকল্পের মাধ্যমে প্রতি বছর ৪৭হাজার একর জমিতে পানিসেচের মাধ্যমে কৃষিক্ষেত দ্বারা অতিরিক্ত ফসল উঠানোর কথা ছিল। তখন বলা হয়েছিল এই অতিরিক্ত ফসল সারা সিলেট জেলার চালের চাহিদা পূরণ করে বিদেশে রপ্তানী করা যাবে। কিন্তু আজ!